লংগদুতে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ছাড় দেবেনা সরকার

66
শেয়ার

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, লংগদুর সহিংস ঘটনার জের ধরে সৃষ্ট অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ সকল পরিবারকে সরকারি উদ্যেগে স্থায়ী ভাবে পূর্ণবাসন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই নির্দেশনা দিয়েছেন।
পাশাপাশি এই সহিংস ঘটনাসহ নিহত যুবলীগ নেতা নুরুল ইসলাম নয়নের হত্যাকারিদের গ্রেফতার করতে হবে। এব্যাপারে কোন ছাড় দেয়া হবে না।
এখানের সম্প্রীতি বিনষ্ট করার জন্য একটি স্বার্থাম্বেষী মহল এই ঘটনা ঘটিয়েছে। বুধবার দুপুরে লংগদু উপজেলা সদরে তিন টিলা, বাইট্টাপাড়া মানিক্যাছাড়য় সহিংস ঘটনায় সৃস্টি অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের সঙ্গে মতবিনিময় কালে মন্ত্রী এই কথা বলেন।

মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ৭ সদস্য বিশিষ্ট ১৪ দলের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল নিয়ে ধটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ১৪ দলের নেতৃবৃন্দের মধ্যে রয়েছেন ফজলে হোসেন বাদশা, ডঃ শাহাদাৎ হোসেন, রেজাউল করিম খান ও এজাজ আহমেদ।

এই সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতি মন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি, পার্বত্য বিষয়ক সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার, সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা ও খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মীর মশফিকুর রহমান এই দলের সঙ্গে ছিলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সহিংস ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ লোকজনদের নিজ নিজ বসত বাড়িতে ফিরে আসার আহব্বান জানিয়ে বলেন আমরা এখানকার জনগণকে আশ্বস্থ করতে চাই পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি অনুযায়ী এখানে শাস্তি স্থাপনে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচেছ।

প্রতিনিনিধি দল সদরের তিন টিলা বৌদ্ধ বিহারের আশ্রয় কেন্দ্রে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থদের সঙ্গে কথা বলেন এবং ক্ষতিগ্রস্থদের কথা শুনেন। প্রতিনিধি দল এই ধরণের ঘটনার নিন্দা জানান। সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্থ লোকজনের প্রতিও তারা সমবেদনা জানান।

প্রতিনিধি দল বাইট্টাপাড়া এলাকায় নিহত নয়নের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। নয়নের পরিবারকে প্রয়োজনীয় সরকারি সহায়তা প্রদানসহ সার্বিক সহযোগিতা করার কথা বলেন একই সঙ্গে নয়নের হত্যাকারীদের গ্রেফতার করার আশ্বাস দেন। বিকালে মন্ত্রী রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ পরিদর্শন করেন।

মন্ত্রী নাসিম ও ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ মঙ্গলবার রাতেও রাঙ্গামাটি সার্কিট হাইজে লংগদুর সহিংসা ঘটনা নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। এই সময়ে মন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সব সময় সম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী। পার্বত্য শান্তি চুক্তি অনুসারে এখানে শান্তি ও সম্প্রীতি স্থায়ী হবে।

যুবলীগ নেতা নয়ন হত্যার জের ধরে লংগদু উপজেলা সদরে কযেকটি পাহাড়ী গ্রামে ২শতাধিক ঘর পুড়ে দেয়ার ঘটনায় বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন চেয়াম্যান অধ্যক্ষ বাঞ্চিতা চাকমাকে আহ্বায়ক করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন ঢাকার সহকারী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান ও রাঙ্গামাটির উপ পরিচালক কাজী সালাউদ্দিন। কমিটি ৪ কার্যদিবসের মধ্যে ঘটনার বিস্তারিত তথ্য যাচাই করে প্রতিবেদন প্রদান করার জন্য বলা হয়েছে।

কমিটি বৃহস্পতিবার থেকে তাদের কাজ শুরু করবে বলে আহ্বায়ক বাঞ্চিতা চাকমা জানান। তারা সরেজমিনে তদন্ত করে একটি প্রতিবেদন প্রদান করবেন।

মন্তব্য করুন

comments