চট্টগ্রামে অস্ত্রসহ যুবক গ্রেপ্তার

82

আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদসহ এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে নগরীর বাকলিয়া থানা পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, গ্রেপ্তার হওয়া মামুন নিজেকে যুবলীগ কর্মী পরিচয় দিয়ে এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ করে আসছিলেন।

বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে নগরীর কোতোয়ালী থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন।

মামুনের স্বীকারোক্তিমতে নগরীর বাকলিয়ার রাজাখালী এলাকায় তার আস্তানা থেকে একটি এলজি ও তিন রাউন্ড কার্তুজ এবং দুটি কিরিচ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

গ্রেপ্তার মো. মামুন (৩৭) বাকলিয়া থানার রাজাখালী ফায়ার সার্ভিসের বাচুর বাপের বাড়ির আমজু মিয়ার ছেলে।

ওসি নেজাম বলেন, গত রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) মামুন এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে জিয়াউল হক জিয়া নামে একজনকে গুরুতর আহত করেন।এতে জিয়াউল মুমুর্ষূ অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেলে ভর্তি হয়। বিচারাধীন একটি মামলায় সাক্ষ্য দেওয়ায় তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এই ঘটনার পর আমরা সন্ত্রাসী মামুনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছিলাম। আজ (বুধবার) আমরা তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি।

জানা যায়, গ্রেপ্তার মামুন সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যা মামলার আসামি এহতেশামুল হক ভোলার সেকেন্ড-ইন-কমান্ড ছিল।

উল্লেখ্য ২০১৬ সালের ৫ জুন চট্টগ্রাম নগরের জিইসি মোড় এলাকায় গুলি ও ছুরিকাঘাতে খুন করা হয় মাহমুদা আক্তার মিতুকে। এ ঘটনায় সাবেক এসপি বাবুল আক্তার অজ্ঞাতপরিচয় তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেন। ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে নগর গোয়েন্দা পুলিশ ওই বছরের ২৭ জুন নগরীর বাকলিয়ার রাজাখালী এলাকা থেকে এহতেশামুল হক ভোলাকে গ্রেপ্তার করে। ভোলা নিজেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হিসেবে পরিচয় দিত। মিতু হত্যায় মামলার পাশাপাশি তার স্বীকারোক্তিতে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় ভোলার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনেও একটি মামলা দায়ের হয়।

মামুনের বিরুদ্ধে আদালতে ১২টিরও বেশি মামলা বিচারাধীন রয়েছে বলেও জানান ওসি বাকলিয়া।

মন্তব্য করুন

comments