নগরীতে হিজবুত তাহরীর চট্টগ্রামের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান লিফলেট সহ গ্রেফতার

95

চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানা এলাকা থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হিজবুত তাহরীর উলাইয়াহ বাংলাদেশের এক নেতাকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

গত রবিবার (০৬ই জানুয়ারী) ২০১৯ইং রাত ৮.৩০ এর দিকে চট্টগ্রাম কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার নির্দেশনায় অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার (কাউন্টার টেরোরিজম) এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোতয়ালী থানাধীন কবি কাজী নজরুল ইসলাম রোড কোতয়ালী মোড় জামে মসজিদের দক্ষিন পাশে বাঁশখালী ফার্মেসীর সামনে অভিযান পরিচালনা করে হিজবুত তাহরীর এ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতের নাম সাবকাত আহম্মেদ (২০)। তিনি চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার খরনা ইউনিয়নের এ. টি . কাওসার আহমদ চৌধুরীর ছেলে।
সাবকাত আহম্মেদের কাছ থেকে হিজবুত তাহরীরের বিভিন্ন উসকানিমূলক পোস্টার ও লিফলেট উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এক লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পুলিশ জানায়, এসময় তার কাছ থেকে “হে মুসলিমগন! নিষ্ঠাবান সামরিক অফিসারদের নিকট দাবি জানান যাতে জালিম হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে অপসারন করে খিলাফতে রাশিদাহ্‌ পুন:প্রতিষ্ঠায় হিযবুত তাহরীর এর নিকট ক্ষমতা হস্তান্তর (নুসরাহ প্রদান) করে” লেখা সহ
বিভিন্ন লেখা সম্বলিত ২০ টি লিফলেট, “আওয়ামী-বিএনপি-জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট…কাফির সাম্রাজ্যবাদীদের এই দালাল শাসকগোষ্ঠিকে প্রত্যাধ্যান করুন” লেখা সহ বিভিন্ন লেখা সম্বলিত ২৫ টি লিফলেট, “হিযবুত তাহরীর-এর নেতৃত্বে খিলাফত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাই মুক্তির একমাত্র পথ” লেখা সহ বিভিন্ন লেখা সম্বলিত ২৯ টি লিফলেট, “বৈষম্যমূলক কোটাব্যাবস্থার বাস্তবায়নকারী গনতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা অপসারণের দাবী তুলুন” লেখা সহ বিভিন্ন লেখা সম্বলিত ২২টি লিফলেট, “খিলাফতে রাশিদাহ পুন:প্রতিষ্ঠায় হিযবুত তাহরীর-কে নুসরাহ্‌ প্রদানে নিষ্ঠাবান সামরিক অফিসারদের নিকট জোর দাবী তুলুন” লেখা সহ বিভিন্ন লেখা
সম্বলিত ১২ টি লিফলেট, “খিলাফত ব্যবস্থা কি মাত্র ত্রিশ বছর টিকে ছিল?” লেখা সহ বিভিন্ন লেখা সম্বলিত তিন পাতার ৮টি লেকচারশীট, ২০টি খাকি খাম, একটি ‘ইউনিভার্সিটি অফ ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি চিটাগাং’ (University of creative technology Chittagong) এর আইডি কার্ড, একটি ছাই রংয়ের ব্যাকপ্যাক, একটি স্মার্ট মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে সাবকাত জানিয়েছে , সে নিষিদ্ধ ঘোষিত হিজবুত তাহরীর চট্টগ্রামের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের প্রধান
এবং চট্টগ্রাম শহরে বিভিন্ন সময়ে কোর্ট বিল্ডিং, নিউ মার্কেট, লালখান বাজার এলাকায় সে নিজে উপস্থিত থেকে
তার দলের অন্যান্য সদস্যদের সাথে নিষিদ্ধ ঘোষিত হিজবুত তাহরীর এর সরকার ও রাষ্ট্র বিরোধী বক্তব্য সম্বলিত পোষ্টার সমূহ
লাগায়। এবং এর মাধ্যমে সরকারকে উৎখাত করে শরীয়াহ ও খেলাফত ভিত্তিক শাসন ব্যবস্থা কায়েম করতে চায়।
সাবকাত আহমদের সঙ্গে থাকা আরও ৫/৬ জন জঙ্গি সদস্য পালিয়ে যায় বলে জানায় পুলিশ। তবে তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

সাবকাতের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলা রজু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

comments