১৬৭ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাল ইতালি

বাংলাদেশ ইতালি যাওয়া দু’টি ফ্লাইটের ১৬৭ শেষ পর্যন্ত দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। বুধবার (৮ জুলাই) তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে। একই দিন দুটি ফ্লাইটে তারা ইতালি গিয়েছিলেন।

জানা গেছে, ওই ফ্লাইটে থাকা এক বাংলাদেশি প্রবাসী নারীকে ফিরিয়ে না দিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। একই সঙ্গে থাকা অন্য দেশের বেশ কিছু নাগরিককে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

ইতালির রোম দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মো. আরফানুল হক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টার দিকে ফিউমিসিনো বিমানবন্দরে ওই বিমানটি অবতরণ করে।

এর আগে সোমবার বাংলাদেশ থেকে যাওয়া যাত্রীদের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করে ইতালি কর্তৃপক্ষ। এরপর বাংলাদেশের সঙ্গে এক সপ্তাহের জন্য সকল ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

বুধবার ইতালির স্থানীয় গণমাধ্যম আইএল মেসেজারোর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রোমের ফিউমিসিনো বিমানবন্দরে অবতরণ করার পর সেখান থেকে ১২৫ বাংলাদেশিকে নামতে দেয়া হয়নি।

আইএল মেসেজারো বলেছে, ইতালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, কাতার এয়ারওয়েজের ওই বিমানের ১২৫ বাংলাদেশি আরোহী ইতালিতে প্রবেশ করতে পারবেন না। এমনকি বিমানবন্দরে বিমানের ভেতর থেকেও তারা নামতে পারবেন না।

তবে কাতার এয়ারওয়েজের ফ্লাইটটিতে থাকা অন্যান্য দেশের ৮০ যাত্রীর নামার অনুমতি মিলেছে। বিমানবন্দরে তাদের করোনার নমুনা পরীক্ষা শেষে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

তবে বাংলাদেশের সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করলেও কাতারের সঙ্গে ফ্লাইট চালু আছে ইতালির। সেই হিসেবে কাতারের রাজধানী দোহা থেকে যাওয়া ওই ফ্লাইটটির বাংলাদেশি যাত্রীদের ইতালি প্রবেশে কোনো বাধা থাকার কথা ছিল না। কিন্তু তাদের দেশটিতে প্রবেশ করতে না দিয়ে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

এদিকে বুধবার ইতালির বেশি কিছু জাতীয় দৈনিকে বাংলাদেশের রিজেন্ট হাসপাতালের ভুয়া করোনা পরীক্ষা নিয়ে সংবাদ ছেপেছে। দৈনিক ইল মেসসাজ্জেরো প্রিন্ট সংস্করনে প্রথম পাতায় শিরোনাম করেছে, ‘বাংলাদেশে ভুয়া করোনা সার্টিফিকেট বিক্রয় হয়!

সোমবার বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে প্রবেশ করাদের মধ্যে যাদের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে তাদেরকে আইসোলেয়শন অথবা হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর বাকিদের হোম করেন্টাইনে রাখা হয়েছে রোমের হিলটন হোটেলে। জানা গেছে, এই হোটেলে জনপ্রতি এক দিনের ভাড়া বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৫০ হাজার থেকে এক লাখ।

এর আগে অন্য একটি ফ্লাইটের দুই ডজনের বেশি বাংলাদেশি আরোহীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর বাংলাদেশের সঙ্গে বিমান চলাচল বন্ধ করে দেয় ইতালি।

মন্তব্য করুন

comments