সব সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার নির্দেশ

করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা সুবিধা সম্প্রসারণ করার লক্ষ্যে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

নতুন এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ৫০ এর অধিক শয্যার প্রত্যেকটি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হবে।

সোমবার (২৫ মে) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ এই নির্দেশনা জারি করেছে। ঐ নির্দেশনায় বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন দেশের কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা পর্যালোচনা করে একই হাসপাতালে কভিড ও নন-কভিড রোগীদের হাসপাতালের পৃথক অংশে রেখে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার পরামর্শ দিয়েছেন। এ অবস্থায় জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রস্তাবনা অনুযায়ী, কোভিড ও নন-কোভিড রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ৫০ শয্যা ও এর ওপরে শয্যাবিশিষ্ট সব সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড এবং নন-কোভিড রোগীদের চিকিৎসার জন্য পৃথক ব্যবস্থা চালুর নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

শনাক্ত হওয়া রোগীদের বেশিরভাগই এতদিন বাসায় থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। করোনা রোগীদের জন্য কিছু হাসপাতাল নির্ধারণ করে দিয়ে সেখানে বাকিদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল।

দেশের সব সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল, ক্লিনিক এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টার মালিকদের সংগঠনের কাছে এ চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) হাবিবুর রহমান খান বলেন, বর্তমানে করোনা সংক্রমণের পিকটাইম চলছে। সর্বোচ্চ সংক্রমণের এই সময়ে প্রতিদিন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়বে। আক্রান্ত মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার বিষয়টি এখানে সর্বোচ্চ গুরুত্ব পাবে। এটি বিবেচনা করে ৫০ শয্যা ও তার ওপরের সবদেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। এর মাধ্যমে সব মানুষকে চিকিৎসার আওতায় আনা সম্ভব হবে।

এদিকে, দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এরই মধ্যে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৬ হাজার ছাড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৫২২ জন।

মন্তব্য করুন

comments