দিল্লি সীমান্ত এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ ঘোষণা করলেন কেজরিওয়াল

করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ রাখা হল রাজধানীর সীমান্ত। লকডাউনের পঞ্চম দফা শুরুর প্রথম দিনেই সাংবাদিক বৈঠক করে সেই ঘোষণা করলেন সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। 

সীমান্ত খুলে দিলেই বাড়তে পারে আক্রান্তের পরিমাণ। তাই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে আপাতত এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ করা হল সীমান্ত।

তবে জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী ও সরকারি পাস থাকা ব্যক্তিরা এই সময়ে যাতায়াত করতে পারবেন।

সীমান্ত সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে উল্লেখ করে কেজরিওয়াল বলেন, এটা আমরা এজন্য করেছি যেন শহরের হাসপাতাল ও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। যে মুহূর্তে আমরা সীমানা খুলব, শহরের বাইরে থেকে লোকজন চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে আসবেন। এখন দিল্লির হাসপাতালগুলো এখানকার মানুষের জন্যেই সংরক্ষণ করা উচিত।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কোভিড–১৯ এ আক্রান্ত মানুষের জন্য আমাদের সাড়ে ৯ হাজার শয্যা রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি নিশ্চয়তা দিতে পারি, আপনি বা আপনার পরিবারের কেউ আক্রান্ত হলে একটি শয্যা পাবেন।

করোনা ভাইরাস নিয়ে বেঁচে থাকতে হবে, এই চরম সত্য উপলব্ধি করে রাজ্যে অর্থনীতির হাল ফেরাতে চান দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। তাই লকডাউনের পঞ্চম পর্বে অতি সাবধানী হয়েই রাজ্যসামলাতে চান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তবে দিল্লিবাসীকে ভয় না পেয়ে মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে সাহসের সঙ্গে লড়াই করতে পরামর্শ দিয়েছেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দিল্লিতে করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। মারা গেছে ৪৭৩ জন। তবে সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা বাড়ছে। রোববার ২৪ ঘন্টায় ১ হাজার মানুষ সংক্রমিত হওয়ার খবর দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য করুন

comments