লাদাখ সীমান্তে চীন-ভারত উত্তেজনা, মধ্যস্থতার প্রস্তাব ট্রাম্পের

লাদাখ সীমান্তে দুই দেশের সামরিক বাহিনী ও সামরিক সরঞ্জামের উপস্থিতি ঘিরে তৈরি হওয়া সাম্প্রতিক উত্তেজনায় সমাধানে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার এক টুইট বার্তায় এই মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেন তিনি।

গত কয়েকদিন ধরেই ভারতের লাদাখ অঞ্চল ঘেঁষা সীমান্তে চীনা সৈন্যদের টহল দিতে দেখা যায়। আর এতে করেই ভারত সরকার নড়েচড়ে বসেছে। ফলে ১৯৯৯ সালের কারগিলের পর সীমান্ত নিয়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তায় পড়েছে ভারত। দুই দেশের মাঝে অন্তত সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে।

টুইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা ভারত এবং চীনকে জানিয়েছি, যুক্তরাষ্ট্র তাদের ক্রমবর্ধমান সীমান্ত বিরোধের মধ্যস্থতা বা সালিশি করতে প্রস্তুত, ইচ্ছুক এবং সক্ষম। আপনাদের ধন্যবাদ!

সীমান্তে সাম্প্রতিক উত্তেজনার পর লাদাখে সৈন্য সমাবেশ এবং সামরিক সরঞ্জাম মজুদ করছে চীন এবং ভারত। প্রতিবেশি দুই দেশের এই উত্তেজনা চরম আকার ধারণ করেছে লাদাখের বিতর্কিত সীমান্তে চীন অস্বাভাবিক সামরিক সরঞ্জাম মজুদ করছে বলে স্যাটেলাইট চিত্রে ধরা পড়ার পর।

সেনাবাহিনীকে যুদ্ধ প্রস্তুতি নেয়ার জন্য চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের নির্দেশের একদিন পর লাদাখ সীমান্তে এমন চিত্র দেখা গেল। 

গত বছর আগস্ট মাসে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পরই আকসাই চীন সম্পর্কে প্রথম বিপদসঙ্কেত পেয়েছিল বেজিং, ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের মন্তব্যে। তখন থেকেই নিজেদের ঘুঁটি সাজানো শুরু করেছিল তারা। মাঝে কোভিড নিয়ে নজর কিছুটা ঘুরলেও কালক্রমে তা সামলে নিয়ে আবার সীমান্তে প্রস্তুত করা হচ্ছে চীনা সেনাবাহিনী- পিএলএ’কে।

গতবছর আগস্টে কাশ্মীর নিয়ে সিদ্ধান্তের পরেই সংসদে অমিত শাহ পাকিস্তান ও চীনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যার ব্যাপারে চড়া সুরে বলেন, ‘পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও আকসাই চীনও ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ।’

মঙ্গলবার (২৬ মে) চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং দেশের সেনাবাহিনীকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, যেকোনো যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হতে হবে। দেশকে সুরক্ষা দিতে সবরকমভাবে প্রস্তুতি থাকা চাই। আর এ কথা তিনি তখনই বললেন, যখন ভারত সীমান্তে উত্তেজনা চলছে।

এদিকে, চীনের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার নয়াদিল্লিতে ভারতের তিনবাহিনীর প্রধানের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সীমান্ত পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে লাদাখে নিরাপত্তা জোরদার করার নির্দেশ দেন ভারতীয় এই প্রধানমন্ত্রী।

মন্তব্য করুন

comments