চট্টগ্রামে শিশুকে জবাই করে হত্যার পর খুনি চাচা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

চট্টগ্রাম মহানগরীর ডবলমুরিং থানা এলাকায় তিন বছরের শিশু মেহেরাবকে জবাই করে হত্যার কয়েক ঘণ্টার মাথায় হত্যাকারী জসিম উদ্দিন রাজু (৩২) ‘বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার ভোরের দিকে ডবলমুরিং থানার পাহাড়তলী ঝর্ণাপাড়ার জোড় ডেবার পূর্ব পাড়ে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এ ঘটনা ঘটে। 

ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, একটি কার্তুজ, ৪ রাউন্ড গুলির খোসা, একটি ধারালো (ফোল্ডিং) ছুরি ও ৮৭৫ পিছ ইয়াবা করেছে পুলিশ।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুদীপ কুমার দাশ বলেন, মঙ্গলবার রাতে হাজীপাড়ার জলিল ম্যানসন বাড়িতে আসামি জসিম উদ্দিন রাজুর সাথে তার ছোট ভাইয়ের বউ নিলু আকতারের ঝগড়া হয়। এসময় রাজু আপন ভাতিজা নিলুর ছেলে মেহেরাবকে (৩) ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাত ১২ টার দিকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চমেকের মর্গে পাঠায়। নিহত শিশু মেহেরাব ওই এলাকার জলিল ম্যানসনের মো. রাশেদের ছেলে। পরে রাতেই নিহত শিশুর মা বাদী হয়ে ডবলমুরিং থানায় জেঠা জসিম উদ্দিন রাজুকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ আসামি ধরতে অভিযানে বের হয়।

ওসি সুদীপের ভাষ্য, অভিযানের এক পর্যায়ে পুলিশ পাহাড়তলী ঝর্ণাপাড়ার জোড় ডেবার পূর্ব পাড়ে গেলে সেখানে সহযোগীদের নিয়ে অবস্থান করা রাজু তার বাহিনী নিয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায় এবং গুলি করা শুরু করে। পুলিশ পাল্টাগুলি চালালে দুপক্ষের ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আসামি রাজু নিহত হয় এবং অন্যরা পালিয়ে যায়।

তিনি বলেন, জসিম উদ্দিন রাজু একজন পেশাদার ছিনতাইকারী। সে একাধিক হত্যা মামলার আসামি, অবৈধ অস্ত্রধারী ও তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী। জসিম বিভিন্ন সময় চট্টগ্রাম মহানগরীতে চুরি, ছিনতাই, মাদক ও খুনসহ ডাকাতির কাজে লিপ্ত ছিল। একেক সময় একেক অপরাধ করে আসছিল সে।

নিহত আসামি জসিম উদ্দিন রাজুর বিরুদ্ধে হালিশহর, ডবলমুরিং ও বন্দর থানায় অস্ত্র, মাদক, সন্ত্রাস ও জন নিরাপত্তা আইনে ১৩টি মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি।

মন্তব্য করুন

comments

আগের সংবাদবাতাসের মাধ্যমে করোনা ছড়াতে পারে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
পরের সংবাদদেশে একদিনে আরও ৪৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৪৮৯