বলিউডের সাজিদ-ওয়াজিদ জুটির ওয়াজিদ খান মারা গেছেন

সাজিদ-ওয়াজিদ জুটির ওয়াজিদ আর নেই। সোমবার (১ জুন) মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে মাত্র ৪২ বছর বয়সে কিডনির সংক্রমণজনিত জটিলতার কারণে তিনি মারা গেছেন।

তিনি করোনায় মারা গেছেন বলে অনেকে অনুমান করেছিল। তবে আপাতত জানা যাচ্ছে যে তিনি কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। 

সংগীত পরিচালক সেলিম মার্চেন্ট এই সংবাদ নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন মুম্বাইয়ের চেম্বুরে এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন ওয়াজিদ। সেখানেই দ্রুত তার পরিস্থিতির অবনতি হয়।

বলিউডে সাজিদ-ওয়াজিদ দুই ভাইয়ের জুটি খুবই জনপ্রিয় ছিল। সেই দুই সংগীত পরিচালকের মধ্যেই একজন চলে গেলেন। ওয়াজিদের মৃত্যুতে ভেঙে গেল এই মানিক জোড়। দুই ভাইয়ের জুটির অনবদ্য সৃষ্টি থেকে বঞ্চিত হবে বলিউড। 

সালমন খানের বহু ছবিতে কাজ করেছেন ওয়াজিদ। ১৯৯৮ সালে ‘প্যায়ার কিয়া তো ডরনা ক্যায়া’ দিয়ে শুরু। এরপর গর্ব, তেরে নাম, তুমকো না ভুল পায়েঙ্গে, পার্টনার, দাবাঙ্গ- সব ছবিতেই সংগীতের মাধ্যমে দর্শকের মনে জায়গা করে নেন ওয়াজিদ। 

তিনি প্লেব্যাকও করেন বেশ কিছু গানে। হালে সালমনের ভাই ভাই ও প্যায়ার কারোনা গানেও সুর দিয়েছেন সাজিদ-ওয়াজিদ জুটি। আইপিএল ৪-এর থিম সং ধুম ধাড়াকাও তাদের সৃষ্টি। 

‘দাবাং’, ‘এক থা টাইগার’, ‘বীর’, ‘পার্টনার’সহ অনেক সিনেমার গানের অ্যালবামের সফল পরিচালক ছিলেন তারা। সেরা সংগীত পরিচালক হিসেবে তাদের অর্জিত পুরস্কারগুলোর মধ্যে রয়েছে ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড, জি সিনে অ্যাওয়ার্ড, গিল্ড অ্যাওয়ার্ড, মিরচি মিউজিক অ্যাওয়ার্ড (সমালোচকদের পছন্দ) ইত্যাদি। 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে ওয়াজিদ খানের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন সংগীতশিল্পী সোনু নিগম। এরপর দাবানলের মতো তার মৃত্যুসংবাদ ছড়িয়ে পড়ে বিনোদন দুনিয়ায়। তার অকালে চলে যাওয়ায় মুষড়ে পড়েছেন বলিউডের তাবড় সব তারকারাও।

মন্তব্য করুন

comments