চট্টগ্রামে আক্রান্ত আর মৃত্যুতে এগিয়ে পটিয়া, ২ দিনে শনাক্ত ১০১

লকডাউন তুলে নেওয়ার পর চট্টগ্রামের পটিয়ায় লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। গত দুই দিনে পুলিশসহ ১০১ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে পটিয়ায়। এনিয়ে জনমনে ছড়িয়ে পড়েছে উদ্বেগ, আতঙ্ক।

সূত্র জানায়, গত সোমবার (১ জুন) ৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে পজিটিভ পাওয়া গেছে ৫২ জনের। মঙ্গলবার (২ জুন) ৯৭ জনের নমুনা পরীক্ষাকরে ৪৯ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র অনুযায়ী, পটিয়া উপজেলায় মোট ৩৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৪৪ জন। যা চট্টগ্রামের ১৪ টি উপজেলার মধ্যে সর্বোচ্চ। এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩, এটাও সর্বোচ্চ।

এস আলম গ্রুপের পরিচালক মো. মোরশেদুল আলমসহ এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নে ১জন, পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডে ২জন, উপজেলার কোলাগাঁও ইউনিয়নে ১জন মারা গেছেন। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম শিশুর মৃত্যু হয়েছে চট্টগ্রামের পটিয়ায়। ১৩ এপ্রিল রাত আড়াইটায় চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে ছয় বছর বয়সী শিশুটি মারা যায়।

করোনা শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাবেদ বলেন, গণপরিবহন চালু ও অফিস খোলা, ঈদের মার্কেটে বেচা–কেনা, ঈদের সময় বিভিন্ন মানুষের চলাচল করোনাভাইরাস বিস্তারের বড় কারণ।

এছাড়া, ঈদে দেশের বিভিন্নস্থানে কর্মরতরা বাড়িতে এসেছিলেন। তাদের মাধ্যমে করোনার বিস্তার ঘটেছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

পটিয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারহানা জাহান উপমা বলেন, পটিয়া দক্ষিণ চট্রগ্রামের প্রাণকেন্দ্র। এখানে অন্যান্য উপজেলার লোকজনের যাতায়াত রয়েছে। সব মিলিয়ে রোগী বাড়ছে। আমাদের অনেক সতর্ক হতে হবে।

এদিকে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ০২/০৬/২০২০ ইং পর্যন্ত চট্টগ্রামের উপজেলাগুলোর করোনা পরিস্থিতিঃ

উপজেলাশনাক্তমৃত্যু
পটিয়া১৪৪
হাটহাজারি১৩৬
সীতাকুন্ড১০৫
লোহাগড়া৫৯
বোয়ালখালী৫৮
চন্দনাঈশ৫৫
রাঙ্গুনিয়া৫০
বাঁশখালী৪৮
সাতকানিয়া৪৭
রাউজান৪৫
আনোয়ারা২১
সন্দ্বীপ১৮
ফটিকছড়ি১৬
মীরসরাই১৫
মোট৮১৭১৬
সূত্রঃ চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়

মন্তব্য করুন

comments