X

ভারতে ১৫ কোটি বছর পূর্বের সামুদ্রিক প্রাণীর ফসিলের সন্ধান

ভারতের গুজরাটের পশ্চিমাঞ্চলে কোটি বছর পূর্বের বিলুপ্ত সামুদ্রিক প্রাণীর ফসিল আবিষ্কার করেছেন ভারতের বিজ্ঞানীরা। ২০১৭ সালে এই নিয়ে দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ ‘ফসিল’ আবিষ্কার হল ভারতে। এমনটাই জানা গেছে ‘প্লস ওয়ান’ নামে এক সায়েন্স জার্নালে।ইকথিয়োসর নামের মেসোজোয়িক যুগের একটি বিলুপ্ত সামুদ্রিক সরীসৃপ এটি। সরীসৃপটি দীর্ঘ মাথা, চারটি ডানা এবং একটি খাড়া লেজ বিশিষ্ট।

সেখান থেকে জানা যায়, ১৮ ফুট দৈর্ঘ্যের এই প্রাণীর খুলির অংশ এবং লেজ ছাড়া বাকি দেহাবশেষ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। ভারতে এর আগে কখনো এতো পুরোনো কোন দেহাবশেষের সন্ধান মেলেনি।

প্রথম আবিষ্কারটি ছিল ভারতের মধ্য প্রদেশের চিত্রকূট অঞ্চলে। বিজ্ঞানীদের মতে, সেখান থেকে ‘রেড অ্যালগি’ নামে যে গাছের ফসিল পাওয়া গিয়েছিল, তা ছিল ভারতের প্রাচীনতম। গাছটির বয়স আনুমানিক ১৬০ কোটি বছর।

এবার যে ফসিল পাওয়া গেছে তা এক ধরনের মাছের। গুজরাটের কচ্ছ জেলার একটি অনামী গ্রামে পাওয়া গিয়েছে সেই বিশালদেহী মাছের কঙ্কাল। বিজ্ঞানীদের মতে, এটি জুরাসিক যুগের সামুদ্রিক প্রাণী, নাম ‘ফিশ লিজার্ড’।

মাছের মতো দেখতে এই গিরগিটির বৈজ্ঞানিক নাম ‘ইকথায়োসর’। দু’টি গ্রিক শব্দ, ইকথিস ও সরাস, যাদের অর্থ যথাক্রমে মাছ ও গিরগিটি, মিলেই এই নাম। এর আগে এই বিশালাকার সরীসৃপের নিদর্শন পাওয়া গেছে উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা, ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়ায়। ভারতে এই প্রথম।

ইকথায়োসর নিয়ে রইল আরও কিছু তথ্য—
১। এই সরীসৃপ দৈর্ঘ্যে প্রায় সাড়ে পাঁচ মিটার।
২। বিজ্ঞানীদের মতে, এই সামুদ্রিক জীবটিকে পাওয়া যেত আড়াই কোটি থেকে দু’ কোটি বছরের মধ্যে, যখন কচ্ছ অঞ্চল ছিল সমুদ্র।
৩। ইকথায়োসর-এর এই জীবাশ্ম আবিষ্কার হয় ২০১৬ সালের প্রথম দিকেই। কিন্তু, তখন রিসার্চ টিম মনে করেছিল এটি ডাইনোসরের।
৪। বিজ্ঞানীদের মতে, এই জীবাশ্মর বয়স আনুমানিক ন’কোটি থেকে ১৬ কোটি বছর।

মন্তব্য করুন

comments