X

মেসির শততম গোলে বার্সার জয়

ইউরোপীয় ফুটবলে শততম গোল করলেন লিওনেল মেসি। দলের সেরা খেলোয়াড়ের এমন মাইলফলক ছোঁয়ার ম্যাচে বেশিরভাগ সময় এক জন কম নিয়ে খেলেও অলিম্পিয়াকোসকে সহজেই হারিয়েছে বার্সেলোনা।

বুধবার রাতে কাম্প নউয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে গ্রিক ক্লাব অলিম্পিয়াকোসকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে এরনেস্তো ভালভেরদের দল। প্রথমার্ধে আত্মঘাতী গোলে স্বাগতিকরা এগিয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে একটি গোল করার পাশাপাশি লুকাস দিনিয়ের গোলে অবদান রাখেন মেসি।

টানা তৃতীয় জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে ‘ডি’ গ্রুপের শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। ইউভেন্তুসকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করা পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা পরের ম্যাচে স্পোর্তিং লিসবনের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছিল।

ষষ্ঠ মিনিটে ম্যাচের প্রথম ভালো সুযোগটি পায় বার্সেলোনা। জেরার্দ দেউলোফেউয়ের কর্নারে সামুয়েল উমতিতির হেডে বল ছয় গজ বক্সে পান লুইস সুয়ারেস। ছুটে এসে উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার বলে পা লাগালেও তা লক্ষ্যে থাকেনি।

১৮তম মিনিটে প্রতিপক্ষের ভুলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ডান দিক থেকে ডি-বক্সে মেসিকে লক্ষ্য করে দেউলোফেউয়ের ক্রস রুখতে গিয়ে নিজেদের জালে ঠেলে দেন গ্রিক ডিফেন্ডার দিমিত্রিস নিকোলাউ।

২৪তম মিনিটে পাওলিনিয়োর হেড লাগে ক্রসবারে। নয় মিনিট পর গোলরক্ষককে একা পেয়েও ব্যর্থ হন সুয়ারেস, তার শট পা বাড়িয়ে ঠেকিয়ে দেন সিলভিও প্রোতো।

৪২তম মিনিটে বড় ধাক্কা খায় স্বাগতিকরা। দেউলোফেউয়ের ক্রস প্রোতো ঠেকানোর পর বল চলে যায় গোলমুখে ছুটে আসা পিকের কাছে। হাত দিয়ে বল জালে ঠেলে দিয়ে গোল তো পাননিই উল্টো দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয়। চতুর্দশ মিনিটে প্রথম হলুদ কার্ড দেখেছিলেন স্পেনের এই ডিফেন্ডার।

৬১তম মিনিটে দারুণ ফ্রি-কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করার পাশাপাশি ইউরোপিয়ান ফুটবলে শততম গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন মেসি। তার বাঁকানো শটে গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে বলে হাত লাগালেও ফেরাতে পারেননি।

এবারের আসরে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের এটা তৃতীয় গোল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তার মোট গোল হলো ৯৭।

মন্তব্য করুন

comments