সাবেক মেয়র এবং বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা মারা গেছেন

15
ছবিঃ সাদেক হোসেন খোকা

অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা মারা গেছেন। আজ সোমবার (৪ নভেম্বর) দুপুরে নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল আলমগীর শোক প্রকাশ করেছেন। জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকেও শোক প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে তার সর্বশেষ স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আইনগত বাধা থাকলেও তিনি যেন নির্বিঘ্নে দেশে ফিরতে পারেন এ জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশও দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

গতকাল রোববার নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে মেমোরিয়াল স্লোন ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টারে চিকিৎসাধীন ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকাকে দেখতে যান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান।

এ সময় তিনি জানান, সাদেক হোসেন খোকার শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী মানবিক বিবেচনায় খোকার দেশের ফেরার ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন।

কিডনি ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে ২০১৪ সালের মে মাসে চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যান সাদেক হোসেন খোকা। তারপর থেকে গত সাড়ে পাঁচ বছর যাবৎ থাকছেন নিউইয়র্ক সিটির ইস্ট এলমহার্স্ট এলাকায় একটি ভাড়া বাসায়। সার্বক্ষণিক তার সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী ইসমত হোসেন। সেখানে থেকেই তিনি চিকিৎসা নেওয়া শুরু করেন। তবে বিদেশে থাকা অবস্থায় বেশ কয়েকটি দুর্নীতি মামলায় সাজা হয় সাদেক হোসেন খোকার।

এদিকে ২০১৭ সালের শেষদিকে খোকা এবং তার স্ত্রী ইসমত হোসেনের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হলে নিউইয়র্কের বাংলাদেশ কনস্যুলেটে প্রয়োজনীয় ফি জমা দিয়ে পাসপোর্ট নবায়ন বা নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন সাবেক এ মেয়র। পাসপোর্ট না পেয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করলেও এখনো সেই বিষয়ে কোনো সুরাহা হয়নি।

অপরদিকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম নিজের ফেসবুক পেজে স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছিলেন, সাদেক হোসেন খোকার পরিবার নিউইয়র্কে ‘ট্রাভেল পারমিট’র জন্য আবেদন করলে বাংলাদেশ মিশন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

খোকা ও তার স্ত্রীর নামে মামলা আছে এবং গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও থাকতে পারে। কিন্তু মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, তারা এ অবস্থায় এলে বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা হবে।

মন্তব্য করুন

comments