মেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে প্রথম বিদ্যুৎ যাচ্ছে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে

184
শেয়ার

দেশে মেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে প্রথম বিদ্যুৎ যাচ্ছে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে। সীতাকুন্ডের বাড়বকুন্ড থেকে সন্দ্বীপের বাউরিয়া পর্যন্ত দীর্ঘ ১৫ কি.মি. জুড়ে টানা হবে সাবমেরিন ক্যাবল। এজন্য সাগরের তলদেশে ৩৩ কেভি ক্ষমতার ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ দুটি লাইন বসানোর কাজও প্রায় শেষ। চলতি বছরের জুন মাসে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে এই দ্বীপ জনপদ।

দ্বীপের উপকুলে মাটি খুড়ে বসানো হচ্ছে ক্যাবল। আবার সেই ক্যাবল টানা হচ্ছে সাগরের তলদেশে। জোরেশোরে চলছে এই কর্মযজ্ঞ। মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন জনপদ প্রায় দুই লাখ মানুষের এই দ্বীপ অবশেষে সার্বক্ষণিক বিদ্যুতের আওতায় আসছে। এজন্য টানা হচ্ছে মেরিন ক্যাবল।

সন্দ্বীপের বিপুল সংখ্যক মানুষ প্রবাসী। ফলে আর্থিক সামর্থ্য থাকলেও বিদ্যুৎ আর যাতায়াতসহ নানা সংকটে প্রয়োজনীয় উন্নয়ন হয়নি এই দ্বীপে। তাই এবার জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুত পাবার খবরে খুশি স্থানীয়রা।

ইতোমধ্যে প্রকল্পের ৬০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। জুন মাসের মধ্যে জাতীয় গ্রিড থেকে ১০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাবে সন্দ্বীপ। এতে প্রথম দফায় বিদ্যুতের আওতায় আসবে ১০ হাজার গ্রাহক। তা ছাড়া এ ক্যাবলের মাধ্যমে অপটিক্যাল ফাইবার স্থাপন করা হচ্ছে যা দ্বারা দ্রুতগতিতে ইন্টারনেট ও ভয়েজওভার সুবিধা পাবে সন্দ্বীপবাসী।

জানা গেছে, প্রকল্পটি ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে একনেকে অনুমোদিত হওয়ার পর আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ প্রক্রিয়া ও কার্যাদেশ সম্পন্ন হয়। ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন সাব মেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে দ্বীপে বিদ্যুৎ সরবরাহ, সংযোগ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য দুটি সাবস্টেশন থাকবে।

উপ প্রকল্প পরিচালক ইকবাল করিম জানান,ক্যাবলগুলোর মাধ্যমে ৫০ মেগাওয়াট পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হবে।

এ প্রকল্পের মাধ্যমে বিদ্যুৎ আসলে সন্দ্বীপের জীবন যাত্রার মান পাল্টে যাবে এমন মতামত দিয়ে সন্দ্বীপ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান মিতা বলেন, শুধুমাত্র বিদ্যুৎ না থাকার কারণে নানা নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত থাকা ছাড়াও ব্যবসা বাণিজ্যসহ অনেক ক্ষেত্রে আমরা পিছিয়ে আছি। বিদ্যুৎ আসার পর এখানে শিল্পকারখানা গড়ে উঠবে এবং সন্দ্বীপকে পর্যটন এলাকায় গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

১৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে চীনা প্রতিষ্ঠান জেডটিটি। এই প্রকল্পে সন্দীপে একটি সাব-স্টেশন ও দুইটি ট্রান্সফরমার স্থাপন করা হবে।

মন্তব্য করুন

comments