এইচআইভি ভাইরাসে আক্রান্ত কয়েক হাজার রোহিঙ্গা

40
শেয়ার

বাংলাদেশে পালিয়ে এসে মিয়ানমার সেনাদের নির্যাতন থেকে বাঁচলেও; শেষ রক্ষা হচ্ছে না অনেক রোহিঙ্গার। নানা রোগে আক্রান্তদের সাথে এইচআইভি পজেটিভ রোগীরা প্রবেশ করছে বাংলাদেশে। সামাজিক সংগঠনগুলোর ধারণা, কক্সবাজার ক্যাম্পে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা বহন করছেন, এইচআইভি ভাইরাস। সিভিল সার্জন জানান, প্রায় প্রতিদিনই এইডস রোগে আক্রান্ত দু-তিনজন রোহিঙ্গা আসছেন হাসপাতালে। স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, এখন পর্যন্ত ৯৭ জন শনাক্ত হয়েছেন।

স্বাস্থ্যবিভাগ বলছে, এখন পর্যন্ত এইডস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে ৯৭ জন। যাদের ৮০ জন চিকিৎসা নিচ্ছে কক্সবাজার হাসপাতালে। বাকিরা চট্টগ্রামের একটি সংস্থার আওতায় চিকিৎসা নিচ্ছে।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ৯৭ জনের মধ্যে এইচআইভি ভাইরাস পাওয়া যাওয়ায় ওই অঞ্চলে এইডসের ঝুঁকি বাড়ছে।নানাভাবে ধর্ষণ এবং সচেতনতার অভাবে এ রোগটি রোহিঙ্গাদের মধ্যে ব্যাপক হারে  ছড়িয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই। এজন্য এইচআইভি ভাইরাস ছড়ানো ঠেকাতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবারই সবচেয়ে বেশি এইচআইভি পজিটিভ বহনকারী পাওয়া গেছে রোহিঙ্গাদের মাঝে। এরমধ্যে ৮০ ভাগই নারী ও শিশু।

এইচআইভি বহনকারী রোহিঙ্গাদের নিয়ে উদ্বিগ্ন স্থানীয়রা। বেসরকারি সংস্থাগুলোর আশংকা, শনাক্ত হওয়া রোগী ছাড়াও ক্যাম্পে আরও কয়েকহাজার রোহিঙ্গার মাঝে এইচআইভি পজিটিভ ভাইরাস রয়েছে।

সরকারি-বেসরকারিপর্যায়ে সচেতনতা তৈরীর কিছু কাজ চলছে। তবে তা পর্যাপ্ত নয় বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

তাদের মতে, স্থানীয়দের মাঝে সংক্রমণ ঠেকাতে হলে এখন জরুরি রোহিঙ্গাদের ছড়িয়ে পড়া রোধ করা। কক্সবাজার যেহেতু পর্যটন এলাকা, তাই এ ব্যাপারে কঠোর নজরদারি দরকার বলেও মত সংশ্লিষ্টদের।

মন্তব্য করুন

comments