রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফিরিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানালেন খালেদা

32
শেয়ার

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের ‘মানবতার খাতিরে’ দ্রুত ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

সোমবার কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা শিবিরে গিয়ে সঙ্কট মোকাবেলায় সরকারের ভূমিকারও সমালোচনা করেছেন তিনি।

সেনাবাহিনীর দমন-পীড়নের মুখে পালিয়ে আসা চার লাখের মত রোহিঙ্গা গত কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছে। আর গত ২৫ অগাস্ট রাখাইনে নতুন করে দমন অভিযান শুরুর পর ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে।

মিয়ানমার সরকারের উদ্দেশ্যে খালেদা বলেন, “আপনার মানবতার খাতিরে অতি দ্রুত বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিয়ে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করুন।”

আর রোহিঙ্গারা যাতে নিরাপদে মিয়ানমারে ফিরে যেতে পারে, সেজন্য সরকার ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে কূটনৈতিক তৎপরতা জোরদার করার আহ্বান জানান তিনি।

খালেদা বলেন, “জাতিসংঘ, ওআইসিসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে আমি বলব, আপনারা অবিলম্বে এই সমস্যা সমাধানে এবং তাদের ফিরিয়ে নিতে কূটনীতিক তৎপরতা বৃদ্ধি করুন এবং সরকারকেও জোর কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে বলব।”

“আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে এই দায়িত্ব নিতে হবে যাতে অতি দ্রুত এই রোহিঙ্গারা তাদের নিজের দেশে ফিরে যেতে পারে এবং নির্ভয়ে নির্দ্বিধায় বসবাস করতে পারে।”

সোমবার দুপুর কক্সবাজার থেকে উখিয়ায় পৌঁছে প্রথমে ময়নার গোনা রোহিঙ্গা শিবিরে যান বিএনপি চেয়ারপারসন। সেখানে ত্রাণ বিরতণের পর তিনি সাংবাদিকদের সামনে কথা বলেন খালেদা।

খালেদা জিয়া ময়নার গোনা রোহিঙ্গা শিবির থেকে হাকিমপাড়া ও বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাবেন। সবশেষে বালুখালীর পানবাজারে স্থাপন করা ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) মেডিকেল ক্যাম্পে গিয়ে পাঁচ হাজার রোহিঙ্গা শিশু ও প্রসূতির জন্য চিকিৎসা সামগ্রী হস্তান্তর করবেন তিনি।

ইতোমধ্যে বিএনপির পক্ষ থেকে ১০ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারের জন্য নেওয়া ৪৫ ট্রাক ত্রাণ সামগ্রী কক্সবাজারে ত্রাণ বিতরণ কাজের সমন্বয়ে থাকা সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে

মন্তব্য করুন

comments