একনেকে ৩ হাজার কোটি টাকার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের অনুমোদন

93
শেয়ার

চট্টগ্রাম শহরের লালখান বাজার হতে শাহ আমানত বিমানবন্দর পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে তিন হাজার ২৫০ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। পুরো টাকাই আসবে জিওবি থেকে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

এ বছরের জুলাই থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছে।এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণসহ ৯ প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৬ হাজার ৩৯৩ কোটি ১৮ লাখ টাকা।

প্রকল্প ব্যয়ের মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৫ হাজার ৯০০ কোটি ৭৩ লাখ টাকা,বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ৫৭ কোটি ৩ লাখ এবং প্রকল্প সাহায্য পাওয়া যাবে ৪৩০ কোটি ৪২ লাখ টাকা। মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলানগর এনইসি সম্মেলনকক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে এসব প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকশেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রকল্প সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন,১৬ দশমিক ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ শেষ হলে চট্টগ্রাম শহর এলাকা এবং এর দক্ষিণ অংশের সাথে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার সৃষ্টি হবে। এতে যানজট হ্রাস পাবে এবং বিমানবন্দরে যাতায়াতের পথ সুগম হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত ওই সভায় ৬ হাজার ৩৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে এসব প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

একনেক সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভায় সভাপতিত্ব করেন।

মন্তব্য করুন

comments