দেশে ফিরেছেন খালেদা জিয়া

28
শেয়ার

দেশে ফিরেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আজ বুধবার বিকেলে তিনি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন। সেখানে বিএনপির নেতা-কর্মীরা তাঁকে স্বাগত জানান।

বিএনপির প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, বিকেল সোয়া পাঁচটার দিকে বিএনপির চেয়ারপারসন বিমানবন্দরে নামেন। ৫টা ৩৭ মিনিটে তিনি বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে গুলশানের বাসার উদ্দেশে রওনা দেন।

বিমানবন্দরে বিএনপির চেয়ারপারসনকে স্বাগত জানাতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদসহ বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীরা হাজির হন।

বিমানবন্দরে মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের নেত্রীর বিরুদ্ধে সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করিয়েছে। কিন্তু তিনি গ্রেপ্তারি পরোয়ানাকে ভয় পান না। তিনি আদালতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। শিগগিরই জামিনের জন্য তিনি আদালতে হাজির হবেন।’ মওদুদ অভিযোগ করেন, নেত্রীকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দর এলাকায় হাজার হাজার নেতা-কর্মী আসছিলেন। কিন্তু পুলিশ তাঁদের বাধা দিয়েছে। নেতা-কর্মীদের বিমানবন্দরে যাওয়া ঠেকাতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে গণপরিবহনও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে।

প্রায় তিন মাস পর যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরলেন খালেদা জিয়া। তাঁর বিরুদ্ধে গত সপ্তাহে ঢাকা ও কুমিল্লার আদালত থেকে পাঁচটি মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়।

খালেদা জিয়া গত ১৫ জুলাই যুক্তরাজ্যে যান। প্রায় তিন মাস তিনি সেখানে সপরিবারে থাকা বড় ছেলে তারেক রহমানের বাসায় ছিলেন। এ সময় তিনি চোখ ও পায়ের চিকিৎসা নেন বলে দলের নেতারা জানান।

১৫ জুলাই লন্ডন পৌঁছার পর থেকে খালেদা জিয়া বড় ছেলে তারেক রহমানের বাসায় ছিলেন। বড় ছেলের পরিবার অর্থাৎ তারেকের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান, মেয়ে জাইমা রহমান, প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি, দুই মেয়ে জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমানকে নিয়ে ঈদুল আজহা উদযাপন করেন খালেদা জিয়া। গত ৮ সেপ্টেম্বর পূর্ব লন্ডনের মুরফিল্ড হসপিটালে তার ডান চোখের অস্ত্রোচার হয়। হাঁটুর আর্থারাইটিসের চিকিৎসাও করিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় রাত পৌনে ৩টায় লন্ডনের হিথরো বিমানবন্দর থেকে এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে দেশের পথে রওনা দেন খালেদা জিয়া। দুবাইয়ে আড়াই ঘণ্টা যাত্রা বিরতি দিয়ে বুধবার বিকেল সোয়া ৫টায় ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তিনি। এর আগে তারেক রহমান তার পূর্ব লন্ডনের বাসা থেকে নিজেই গাড়ি চালিয়ে মাকে হিথরো বিমানবন্দরে পৌঁছে দেন। তারেকের স্ত্রী জোবাইদা রহমানসহ পরিবারের সদস্যরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
এ ছাড়া যুক্তরাজ্য বিএনপির কয়েকশ’ নেতাকর্মী হিথরো বিমানবন্দরের বাইরে জড়ো হয়ে খালেদা জিয়াকে বিদায় জানান।

এদিকে খালেদা জিয়ার দেশে ফেরাকে কেন্দ্র করে আজ দুপুরের পর থেকে বিমানবন্দর সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকে বিভিন্ন যানবাহন। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় যাত্রীদের। অনেককেই বাস থেকে নেমে হেঁটে গন্তব্যের দিকে যেতে দেখা যায়।

মন্তব্য করুন

comments