আত্মসমর্পণ করলো জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা

28
শেয়ার

যশোরের ঘোপ নওয়াপাড়ায় প্রায় ১৫ ঘণ্টা পুলিশের ঘেরাওয়ের মধ্যে থাকার পর বাবা-মায়ের উপস্থিতিতে ‘আত্মসমর্পণ’ করেছেন নব্য জেএমবির জঙ্গি নূরুল ইসলাম মারজানের বোন খাদিজা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামন খাঁন কামাল সোমবার বিকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নিজের দপ্তরে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি বলেন, “এই মাত্র আমার কাছে খবর এসেছে, জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা তিন শিশুসহ আত্মসমর্পণ করেছে। তিন শিশুর বয়স যথাক্রমে সাড়ে ৪ বছর, তিন বছর ও দুই বছর।

জঙ্গি অবস্থানের খবর পেয়ে রোববার গভীর রাতে পুলিশ ঘোপ নওয়াপাড়া রোড মসজিদের পেছনে চারতলা একটি ভবন ঘিরে ফেলে। ওই ভবনের দোতালার একটি ফ্ল্যাটে বছরখানেক ধরে ভাড়া থাকছিলেন খাদিজা ও তার স্বামী মশিউর রহমান।

সকাল ১০টার দিকে সোয়াট সদস্যরা ওই বাড়ি ঘিরে অবস্থান নেন। তার আগেই ওই ভবনের পাঁচটি ফ্ল্যাট থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয় পুলিশ।

সকাল থেকে মাইকিং করে খাদিজাকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানানো হলেও তাতে তিনি সাড়া না দেওয়ায় পাবনা থেকে তার বাবা মো. নিজাম উদ্দিন ও মা সালমা খাতুনকে যশোরে নিয়ে আসা হয়।

বিকাল পৌনে ৩টার দিকে পুলিশের একটি গাড়িতে করে তারা ওই বাড়িতে পৌঁছানোর কিছুক্ষণ পর আরেকটি গাড়ি সেখানে নেওয়া হয় এবং মিনিট পনের পর দ্বিতীয় গাড়িতে করে খাদিজা ও তার সন্তানদের নেওয়া হয় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে।

যশোরের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান ঘটনাস্থলের কাছে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের বলেন, পাবনা থেকে মা-বাবাকে নিয়ে আসার পর বেলা ৩টা ৫ মিনিটে খাদিজা তার তিন শিশু সন্তানকে নিয়ে বাসা থেকে বেরিয়ে আসেন।

“তবে খাদিজার স্বামী কোথায় আছে তার খবর পাওয়া যাচ্ছে না। বাড়িতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। পরে আমরা আরও বিস্তারিত জানাতে পারব।”

এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় সাংবাদিকদের বলেন, ওই বাসায় ‘আরেক জঙ্গির স্ত্রী’ আছেন বলে পুলিশের কাছে খবর ছিল। তবে কেবল খাদিজাই সন্তানদের নিয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন।

“ভেতরে আরও কেউ আছে কিনা সে বিষয়টি আমরা দেখছি। ভেতরে বিস্ফোরক আছে বলেও আমরা খবর পেয়েছি।”

মন্তব্য করুন

comments