চট্টগ্রামের ভারতীয় দূতাবাসে সহজ হলো ভিসা প্রক্রিয়া

99
শেয়ার

আজ রোববার থেকে পরীক্ষামূলকভাবে এ পদ্ধতিতে ভিসা কার্যক্রম চালু করেছে চট্টগ্রামে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার কার্যালয়। ফলে কোনো রকম অগ্রিম টিকিট কিংবা অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই এখন থেকে ভারতের ভিসার জন্য আবেদন করা যাবে।

আজ থেকে নারী-পুরুষ সবার জন্য পর্যটন ভিসা আরও সহজ করা হলো। এখন থেকে যাত্রার অগ্রিম টিকিট ছাড়াই ভিসা পাওয়া যাবে। এই প্রক্রিয়ার ফলে কোনো ধরনের ভিসা নিতে আর সমস্যা হবে না বলে মনে করছেন ভারতীয় সহকারী হাইকমিশন কার্যালয়ের কর্মকর্তারা।

বছর খানেক আগে ভোগান্তি দূর করতে সহকারী হাইকমিশনার দপ্তর অগ্রিম বাস, ট্রেন কিংবা বিমান টিকিটের মাধ্যমে ভিসা দেওয়া শুরু করে। এরপর কিছুদিন আগে থেকে কোনো রকম টিকিট ছাড়াই নারীদের ভিসা দেওয়া শুরু করে।

ভিসা নিতে গিয়ে মানুষ অযথা হয়রানি ও ভোগান্তিতে পড়ত। তারা সঠিকভাবে আবেদন ফরম পূরণ না করে আসত। একশ্রেণির লোক কিংবা এখানকার ব্যবসায়ী মানুষকে বোকা বানিয়ে টাকা আয় করত। তারা ভুল বোঝাত, ডকুমেন্ট নিয়ে প্রতারণা করত। ওই হয়রানি দূর করতে সর্বসাধারণের জন্য ভিসা উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

প্রথম ধাপে ১৫ দিন, এরপর এক মাস এই প্রক্রিয়ায় ভিসা দেওয়া হবে। এতে যদি মানুষের উপকার হয়, তাহলে সারা দেশে স্থায়ীভাবে এই প্রক্রিয়ায় ভিসা দেওয়া হবে বলে সোমনাথ হালদার জানান।

সকাল আটটা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ভিসা জমা নেওয়া হবে। এই প্রক্রিয়ার প্রথম দিন আজ সকাল ১০টায় সহকারী হাইকমিশনার কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, ভিসার জন্য দীর্ঘ কোনো সারি নেই।

ভিসা আবেদন জমা দিয়ে বের হওয়ার সময় এক ভিসা প্রার্থী জানান পর্যটন ভিসার জন্য আবেদন করেছেন তিনি। এ জন্য কোনো টিকিট কিংবা বাড়তি টাকাপয়সা লাগেনি। কেবল ভিসা ফি জমা দিতে হয়েছে।

যারা আজ রোববার ভিসার আবেদন করেছেন কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মঙ্গলবার তাঁদের ভিসাসহ পাসপোর্ট ফেরত দেওয়া হবে। নির্ভুল তথ্যে আবেদন ফরম এবং সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র ঠিক থাকলেই ভিসা দেওয়া হবে। এছাড়া মেডিকেল, এডুকেশন, ব্যবসায়িক কিংবা অন্যান্য ভিসা প্রক্রিয়াও সহজ করা হয়েছে। এর ফলে হয়রানির অবসান হবে বলে মনে করছেন ভিসাপ্রার্থীরা।

মন্তব্য করুন

comments