“ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে বুলেট রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করা হবে”

52
শেয়ার

ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে বুলেট রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করা হবে। সময় লাগলেও বাংলাদেশের রেল যোগাযোগ ব্যবস্থায় গতি আনার পরিকল্পনা নিয়েছে বর্তমান সরকার।

বৃহস্পতিবার কলকাতায় আচার্য দীনেশ চন্দ্র সেন রিসার্চ সোসাইটির সম্মানিক স্বর্ণপদক গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে বাংলাদেশ রেল মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী সাংবাদিকদের এমন কথা জানান তিনি।

তিনি বলেন, রেলকে পৃথক মন্ত্রণালয় করার পরই রেলে একটি গতি এসেছে। সময় লাগলেও আগামীতে রেল যোগাযোগ বাড়ানো এবং সার্বিক গতি আনারও পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে হাইস্পিড রেল চালু করার কথাও জানান চট্টগ্রামের রাউজানের সাংসদ।

এই ট্রেন ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছাতে নেবে মাত্র দুই ঘণ্টা। এ কারণে এটি বুলেট ট্রেন বলা যাবে বলে জানান তিনি। তবে কবে নাগাদ এই প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি সময় নির্ধারণ করেননি।

কলকাতায় আচার্য দীনেশ চন্দ্র সেন রিসার্চ সোসাইটির সাম্মানিক স্বর্ণপদক গ্রহণ করতে ৭ সেপ্টেম্বর ওই সাংসদ কলকাতায় পৌঁছান। সেদিনই সন্ধ্যায় কলকাতার প্রেসক্লাবের সাড়ম্বর এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আচার্য দীনেশ চন্দ্র সেন জন্মসার্ধশত বর্ষ উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে তাঁকে স্বর্ণপদক তুলে দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে তিনি ছাড়াও কলকাতার স্থানীয় আমন্ত্রিত অতিথি এবং চট্টগ্রাম থেকে আসা বিশিষ্ট ব্যক্তিরাও উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন কলকাতার বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনারের প্রথম সচিব (প্রেস) মোফাকখারুল ইকবাল। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন দূরদর্শনের প্রাক্তন কর্মকর্তা অরুণাভ রায়।

উল্লেক্ষ্য যে এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত হলে দুই ঘণ্টায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যাওয়া যাবে। বাংলাদেশ রেলওয়ের হাইস্পিড ট্রেন বুলেটে তা সম্ভব। ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার বেগে চলতে পারবে এই বুলেট ট্রেন।যার ফলে রেলপথে ঢাকা-চট্টগ্রামের দূরত্ব কমবে প্রায় ৯০ কিলোমিটার।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি খুলনা-কলকাতার মধ্যে দ্বিতীয় মৈত্রী ট্রেনটিও খুব শিগগিরই চালু হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। প্রসঙ্গত, আগস্টের প্রথম সপ্তাহে কলকাতা-খুলনার মধ্যে যাত্রীবাহী মৈত্রী এক্সপ্রেস চালু হওয়ার কথা থাকলেও এখনও পর্যন্ত তা চালু হয়নি। ভারতীয় রেল থেকে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের রেল থেকে সবুজ সংকেত না পাওয়ায় আজও চালু করতে পারছে না প্রত্যাশিত এই রুটের যাত্রীবাহী ট্রেন।

মন্তব্য করুন

comments