মীরপুরে আত্মসমর্পনের ব্যাপারে ‘ভাবছে’জঙ্গি আব্দুল্লাহ

45
শেয়ার

রাজধানীর মিরপুর মাজার রোডের ভাঙ্গা ওয়ালের গলির ২/৩-বি নম্বর বাসায় এক জঙ্গি অবস্থান করছে সন্দেহে ঘিরে রেখেছে র‌্যাব।জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা ভবনটি থেকে ইতিমধ্যে ৬৫ জন বাসিন্দাদের সরিয়ে এনে স্থানীয় একটি স্কুলের রাখা হয়েছে।

ঘটনার প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, মধ্যরাতে কয়েকটি বোমা বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে। মাঝেমধ্যে গোলাগুলির শব্দও পাওয়া যায়।ধারণা করা হচ্ছে, বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে জঙ্গিরা। রাত থেকেই ভবনটির বাসিন্দাদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। আশপাশের রাস্তাগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, ভেতরে থাকা জঙ্গির নাম আবদুল্লাহ। গত দুই/তিন বছর ধরে বসবাস করছেন তিনি সেই বাড়ীতে।যাদের সরিয়ে আনা হয়েছে, তাদের মধ্যে আবদুল্লাহর এক বোনও আছে। আবদুল্লাহর সঙ্গে যোগাযোগ করার সময় সেই বলেছে, যেন অন্যদের সঙ্গে তার বোনকেও সরিয়ে নেয়া হয়।

রাজধানীর মিরপুরের র‌্যাব জানিয়েছে, ছয়তলা ওই বাড়ির পাঁচতলায় আবদুল্লাহ নামে এক জেএমবি নেতা সপরিবারে অবস্থান করছেন। তাকে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়েছে।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, ‘আমরা মোবাইল ফোনে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি। আবদুল্লাহকে আত্মসমর্পণ করতে বলা হচ্ছে। সে জানিয়েছে, সে ভাবছে।’

সকালে ফায়ার সার্ভিসের চারটি গাড়ি এসে বাড়িটির আশপাশে পানি দেয়। কাউকে বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না।

মাজার রোডের পাশে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানের দক্ষিণে বর্ধনবাড়ি ভাঙ্গা ওয়ালের গলির ২/৩-বি হোল্ডিংয়ে ৬ তলা ওই বাড়ির মালিক হাবিবুল্লাহ বাহার আজাদ নামের এক ব্যক্তি। তিনি নিজেও পরিবার নিয়ে ওই বাড়ির দ্বিতীয় তলায় থাকেন।

মুফতি মাহমুদ খান জানান, র‌্যাব ওই বাড়ি ঘিরে ফেলার পর রাত ১টার দিকে সেখান থেকে ৪টি বোমা ছোড়া হয়। তবে তাতে কেউ হতাহত হননি।

ওই ভবনের ভেতরে আবদুল্লাহর সঙ্গে তার পরিবারের আরও সদস্য রয়েছে বলে মুফতি মাহমুদ খান জানান।

এর আগে সোমবার দিবাগত রাতে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায় মরসুন্দি গ্রামের একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে দুই জেএমবি সদস্যকে আটক করে র‌্যাব। এ সময় ওই বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য, জিহাদি বই ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
আটককৃতরা হলেন- ওই বাড়ির মালিক আবুল হোসেন চিশতির ছেলে মাছুম (৩০) ও খোকন (২৫)। তাদের দেওয়া তথ্য মতে মিরপুরের মাজার রোডের ওই বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।
সোমবার রাতের ওই অভিযানে আটক হওয়ার পর তাকে তাদের কাছ থেকে মিরপুরের এই জঙ্গির অবস্থানের কথা জানতে র‌্যাব। সোমবার রাত ১২টা থেকে র‌্যাব সদস্যরা ওই বাড়িটি ঘিরে ফেলে। এ সময় পরপর তিনটি বোমার বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পাওয়া যায়। এতে আশপাশের বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

মন্তব্য করুন

comments