রাজধানীতে ‘অপারেশন আগস্ট বাইট’ অভিযানে এক জঙ্গি নিহত

36
শেয়ার
ছবিঃ সংগৃহিত

রাজধানীর পান্থপথে ‘হোটেল ওলিও ইন্টারন্যাশনাল’ নামে একটি আবাসিক হোটেলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে সন্দেহভাজন এক জঙ্গি নিহত হয়েছে। ভয়াবহ বিস্ফোরণে হোটেলের দেয়াল ধ্বসে একজন আহত হয়েছে।

এ অভিযানের নাম দেয়া হয়েছে, ‘অপারেশন আগস্ট বাইট’। পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এই তথ্য জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৩টা থেকে পান্থপথের স্কয়ার হাসপাতালের পাশের হোটেল ‘ওলিও’ কে ঘিরে অবস্থান নেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

ট্রলি বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সাইফুল ইসলাম (২১) নামের ওই জঙ্গি আত্মঘাতী হামলায় নিহত হয়। নিহতের শরীরের সুইসাইডাল ব্রেস্টের বিস্ফোরণে আত্মঘাতী ওই জঙ্গির বাড়ি খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায়।তার বাবা একজন মসজিদের ইমাম বলে জানায় পুলিশ।সে মাদ্রাসার ছাত্র ছিলো,পরবর্তীতে সে খুলনা বি এল কলেজে পড়াশোনা করে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের দায়িত্বশীল একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জঙ্গি আস্তানায় সন্দেহজনক কিছু না পাওয়া যাওয়ায় অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম জানান, ট্রলি বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এক জঙ্গি আত্মঘাতী হয়েছে। হোটেলের যে কক্ষে বিস্ফোরণ ঘটেছে, আনুমানিক ৩০ বছর বয়সী এক যুবক সোমবার রাতে সেটি ভাড়া নেয়। হোটেলের রেজিস্টার খাতার তথ্য অনুযায়ী ওই যুবকের নাম সাইফুল ইসলাম, বাড়ি খুলনার ডুমুরিয়ায়। বি এল কলেজ থেকে সে অনার্স পাস করেছে। আমরা ধারণা করছি, ওই যুবকই নিহত হয়েছে।

কলাবাগান থানার এস আই সারোয়ার হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে হোটেলটিতে এ বিস্ফোরণ ও গুলির শব্দ হয়। এর পরপরই সামনের রাস্তা দিয়ে আহত অবস্থায় একজনকে নিয়ে যেতে দেখা যায়।

কলাবাগান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াসিন আরাফাত জানান, আহত ওই ব্যক্তি ব্যাংকের বুথে টাকা তুলতে যাচ্ছিলেন। বিস্ফোরণের ফলে ইটের টুকরো ছিটকে গিয়ে তার মাথায় লাগে।

এ ঘটনার পর আশপাশের ভবন ও সড়ক থেকে লোকজনকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

পুলিশ জানায়, বিস্ফোরণে হোটেলটির সামনের অংশের দেয়াল ধসে পড়েছে।

হোটেলটি ঘিরে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট, সোয়াত ও সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট সদস্যরা অভিযান শুরুর কিছুক্ষণ পর এ বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির শব্দ শুনা যায়। ঘটনাস্থলে রাখা হয় ফায়ার সার্ভিসের বেশ কয়েকটি ইউনিট ও অ্যাম্বুলেন্স।

৯টা ৪৫ মিনিট থেকে ৯টা ৫০ মিনিটের মধ্যে কয়েকবার গোলাগুলির আওয়াজ আসে। ওই সময় এক যুবককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। তাকে দ্রুত স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ওই যুবকের পরনে নীল শার্ট ও প্যান্ট ছিল।

পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহিদুল হক অভিযান শেষে প্রেস ব্রিফিং এ জানান,নিহতের কাছে থাকা বোমা বিস্ফোরিত হলে বড় ধরণের ক্ষতির আশঙ্কা ছিল,আমাদের চৌকস তৎপরতার কারণে এই বিপদ থেকে আল্লাহ আমাদের রক্ষা করেছেন।

নিহত জঙ্গি ছাত্র জীবনে শিবিরের কর্মী ছিল,শিবিরের কর্মী না হলে সে আগস্ট মাসের শোক দিবস নাশকতার পরিকল্পনা করতনা।

তিনি বলেন , আগস্ট মাসে আমরা সতর্ক আছি ,এর আগেও ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলা ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা সহ বিভিন্ন বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে।সেটা মাথায় রেখে পুরো দেশে সেভাবে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়েছি।

মন্তব্য করুন

comments