পেকুয়াতে রিকশার গ্যারেজের আড়ালে অস্ত্রের কারখানা; আটক ২

54
শেয়ার

কক্সবাজারের পেকুয়ায় রিকশার গ্যারেজে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামসহ দুজনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

গতকাল (৫ মার্চ) সোমবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পেকুয়া উপজেলার নাপিতখালী দক্ষিণপাড়ার কাদেরের রিকশার গ্যারেজে এ অভিযান চালায় র‌্যাব-৭।

অভিযানে আটককৃতরা হলেন আবদুল কাদের (৩৪) ও মো. সৈয়দ নুর (৩২)।আটক আবদুল কাদের হাজিবাজার এলাকার আহম্মেদ হোসেনের এবং সৈয়দ নূর পশ্চিম টইটং মৃত জাফর আহম্মেদের পুত্র।

স্থানীয়রা জানান, ওই রিকশা গ্যারেজের মালিক আবদুল কাদের। আর দোকানের মালিক সৌদি প্রবাসী জনৈক বেলাল উদ্দিন। বেলাল উদ্দিনের কাছ থেকে বেশ কয়েক বছর আগে থেকে ভাড়া নিয়ে গ্যারেজের আড়ালে সেখানে অস্ত্র তৈরির কারখানা গড়ে তোলে কাদের। এদিকে গ্রামের একটি রিকশা গ্যারেজে এভাবে অস্ত্র তৈরি হয় দেখে হতভম্ব হয়ে যায় এলাকাবাসী। তারা জানান, আটক দুজন সব ধরণের অপরাধের সঙ্গে জড়িত। তারা টইটং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরীর ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত। গত ২২ ফেব্রুয়ারি তাদের অপর সহযোগী জমির হোসেনকে দেশীয় তৈরি বন্দুক ও তাজা কার্তুজসহ গ্রেফতার করে পেকুয়া থানা পুলিশ।

সোমবার দিবাগত রাত ৯টায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মেজর রুহুল আমিন জানান, অস্ত্র তৈরি করে বিক্রি করার গোপন সংবাদে পেকুয়ার কাদেরের রিক্সার গ্যারেজে অভিযান চালানো হয়। এ সময় গ্যারেজের ভেতর অস্ত্র কারখানার সন্ধান পাওয়া যায়। কারখানা থেকে ১১টি দেশিয় অস্ত্র (৫টি এসবিবিএল, ৪ টি ওয়ান শুটার গান এবং ২ টি ২২ পিস্তল) ও ২২ রাউন্ড গুলি এবং বিভিন্ন প্রকার অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। এ সময় দুইজন অস্ত্র তৈরির কারিগরকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও জানান, তারা গ্যারেজের আড়ালে অস্ত্র বানাতো এবং সেসব অবৈধ অস্ত্র জেলার অপরাধপ্রবণ এলাকা মহেশখালী, চকরিয়া, কুতুবিদয়াসহ বিভিন্ন এলাকার অপরাধীদের কাছে সরবরাহ করতো বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে। আটকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

comments