X

টেকনাফে গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

টেকনাফে বিয়ের তিন মাস পর স্বামীর বাড়িতে লাশ হলেন নববধূ তসলিমা (১৮) । তসলিমা হ্নীলা জাদিমোরাস্থ নয়াপাড়ার জালাল আহমদের দ্বিতীয় মেয়ে। পুলিশ নববধূর স্বামী নুরুল বশর প্রকাশ ভাইয়াকে (২৫) আটক করলেও সন্দেহভাজন শ্বশুর পলাতক রয়েছেন।

স্থানীয়রা জানায়, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোররাত ৬টার দিকে উপজেলার হোয়াইক্যং খারাইগ্যাঘোনার আলী আকবরের ছেলে নুরুল বশর প্রকাশ ভাইয়া (২৫) নিজেদের বাসা থেকে তসলিমার মৃতদেহ গোপনে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে নেয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার উখিয়া থানা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ স্বামীকে আটক করে।

এ ঘটনায় নিহত তসলিমার পিতা বাদি হয়ে টেকনাফ মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। গতকাল দুপুর ২টায় টেকনাফ থানার এসআই মহির উদ্দিন খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এদিকে, নিহত তসলিমার মামা কালা মিয়া ওরফে কালা ভাই বলেন, তারা উভয়ে আমার আত্মীয়। দুজনের সম্পর্কের মাধ্যমে বিয়ে হয়। ছেলে নুরুল বশর পিতার অবাধ্য হয়েই তসলিমাকে বিয়ে করে। এ কারণে তাদের সংসারে প্রায় সময় ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকতো। কিন্তু ছেলের পিতা ন্যাক্কারজনক ঘটনার আশ্রয় নিয়েছেন বলে মনে করেন তিনি।

স্বামী নুরুল বশর জানান, ২৫ ফেব্রুয়ারি ঘটনার দিন সকালে আমার পিতার সাথে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি ও ঝগড়া হয়। এর পর আমি রাতে নাফ নদীর পাড়ে প্রজেক্টে মাছ শিকারে যায়। ভোরে এসে এই অবস্থা দেখে স্ত্রীকে নিয়ে এক সহযোগীসহ হাসপাতালে আসেন তিনি।

এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার ওসি রনজিত কুমার বড়ুয়া জানান, আটক স্বামীকে সংশ্লিষ্ট মামলায় আদালতে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য করুন

comments