পাঁচ বাংলাদেশীকে ফেরত দিলো মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী

23
শেয়ার

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাফ নদে গুলিবর্ষণ করে নৌকাসহ বাংলাদেশী পাঁচ জেলেকে অপহরণের সাত ঘণ্টা পর তাদের ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি)। স্থানীয় জেলে ও বিজিবি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে বাংলাদেশী পাঁচ জেলেকে বিজিবির কাছে ফেরত পাঠায় দেশটির বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।

এদিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কাঞ্জরপাড়া সংলগ্ন নাফ নদে মাছ শিকারের সময় গুলিবর্ষণ করে তাদের অপহরণ করা হয়েছিল।

ফেরত আসা জেলেরা হলেন- টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কাঞ্জরপাড়ার আবদুল গফুরের ছেলে আজিজুল্লাহ, মৃত আবদুল শুক্কুরের ছেলে ইয়ার মোহাম্মদ, মৃত নুরুল আলমের ছেলে শাহ আলম, আব্বাসের ছেলে মো. রফিক ও আবদুল জলিলের ছেলে পেটান আলী।

জানা গেছে, নাফ নদে মাছ ধরা বন্ধ থাকলেও শনিবার সকালে গোপনে একদল জেলে কাঞ্জরপাড়া সংলগ্ন পয়েন্ট দিয়ে মাছ শিকারে যায়। তারা ভুলবশত জলসীমা অতিক্রম করে মাছ শিকার করছিলেন। এ সময় মিয়ানমারের শীলখালী ঘাঁটির বিজিপির একটি বিশেষ টহল দল স্পিডবোট নিয়ে এসে গুলিবর্ষণ করে নৌকাসহ পাঁচ জেলেকে ধরে নিয়ে যায়।

এ সময় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নৌকা থেকে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে সাঁতরে অন্য জেলেদের সহযোগিতায় তীরে ফেরেন কাঞ্জরপাড়ার ফকির মোহাম্মদের ছেলে নুরুল ইসলাম। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এসএম আরিফুল ইসলাম বলেন, গুলিবর্ষণের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে বিজিবির পক্ষ থেকে বিজিপির কাছে প্রতিবাদলিপি পাঠানো হয়। ফেরত আনা জেলেদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

comments