কুমিল্লায় হাত-পা বেঁধে স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ

34
শেয়ার

কুমিল্লায় দরজা আটকে স্ত্রীর হাত-পা বেঁধে গায়ে অকটেন ঢেলে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে।গতকাল মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় মারা যান গৃহবধু রুবিনা।

নিহত রুবিনা কুমিল্লার রেসকোর্স এলাকার আবদুস সালামের মেয়ে। স্বামী সাজ্জাদ হোসেন কুমিল্লা সদর উপজেলার দূর্গাপুর ইতালী মার্কেট এলাকার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে। ওই দম্পতির নুসরাত নামে ১০ মাসের একটি মেয়ে আছে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন রুবিনার স্বামী সাজ্জাদ হোসেন।

গত ২ মাস রুবিনা রেসকোর্সের ধানমণ্ডি রোডের বাসায় ছিল।২ বছর আগে রংমিস্ত্রী সাজ্জাদ রুবিনাকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করে। সে কয়েক মাস আগে রুবিনাকে বাবার কাছ থেকে টাকা আনতে বলে। সাজ্জাদ ও তার মা এর আগেও বহুবার রুবিনার গায়ে হাত তুলেছে বলে জানান রুবিনার ভাই শামীম।

মৃত্যুর আগে রুবিনা পুলিশকে বলেন, ‘ঘুম থেকে তুলে আমাকে মারধর করে সাজ্জাদ। একপর্যায়ে আমার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।’ শাহবাগ থানা পুলিশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

রুবিনার পিতা আবদুস সালাম বলেন, সোমবার রাত ১টায় রুবিনার শাশুড়ি ফোন দিয়ে জানায় তার মেয়ে নিজের গায়ে আগুন দিয়েছে। তারা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান, কিন্তু তার জামাই বা পরিবারের কেউ তাদের সাথে যায়নি। রাতে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে বলে।

তিনি আরও জানান, মেয়ের পায়ে দড়ি দিয়ে বাঁধার দাগও রয়েছে।

রুবিনার ভাই শামীম জানান, কুমিল্লার রেইসকোর্স এলাকায় তাদের বাসা। গত দুই মাস ধরে রুবিনা রেসকোর্সের ধানমণ্ডি রোডের বাসায় ছিল। দুই বছর আগে রংমিস্ত্রী সাজ্জাদ বোন রুবিনাকে নিয়ে পালিয়ে যায়। সাজ্জাদ কয়েক মাস আগে রুবিনাকে বাবার কাছ থেকে টাকা আনতে বলে। এর আগেও বহুবার সাজ্জাদ ও তার মা রুবিনাকে শারীরিক নির্যাতন করেন।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সালাউদ্দিন জানান, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন

comments