নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে ধর্ষণের শিকার হলো স্কুলছাত্রী

134
শেয়ার

নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে নোয়াখালী সদর উপজেলার ৬নং নোয়াখালী ইউনিয়নের আব্দল্লাহপুর গ্রামে ধর্ষণের শিকার হয়েছে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী।এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে স্থানীয়রা ‘ধর্ষক’ সজিব (২০) কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।ভিকটিম সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী।

জানা যায়, সৈয়দপুর জেলা সদরের মো. আলমগীর হোসেনের মেয়ে স্কুলপড়ুয়া মেয়ে ঈদ উপলক্ষে নোয়াখালী সদরের আবদুল্লাহপুর গ্রামে তার নানার বাড়িতে বেড়াতে আসে। মঙ্গলবার রাতে মামা সম্পর্কীয় আহসান উল্লাহ রিপনের ছেলে সজিব তাকে ফুঁসলিয়ে একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে মুখ চেপে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে ওই স্কুলছাত্রীর গলায় চুরি বসিয়ে বিষয়টি কাউকে না জানাতে বারণ করে। এসময় স্কুলছাত্রী চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এসে ঘটনাস্থল থেকে সজিবকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এলাকাবাসী আরো জানায়, ইতিমধ্যে একইভাবে সজিব এলাকায় একাধিক মেয়ের শ্লীলতাহানী করলেও তার ভয়ে এলাকাবাসী নিশ্চুপ ছিলো।

নোয়াখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) নুরুল আমিন বলেন, নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসি।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনার পরপরই এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ধর্ষক সজিব আটক হওয়ার পর থানায় মামলা হয়েছে। ভিকটিমকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়ে মেডিকেল টেস্ট সম্পন্ন করা হয়েছে।

 

মন্তব্য করুন

comments