X

দাফনের একদিন পর লাশের কাটা মস্তক উদ্ধার

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে উদ্ধার হওয়া মস্ককবিহীন লাশের পরিচয় মিলেছে অবশেষে।পরিচয় নিশ্চিত না হওয়ায় শনিবার সকাল ১১টার দিকে আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের মাধ্যমে মোজাহের মিয়াকে ‘বেওয়ারিশ’ হিসেবে দাফন করা হয়।তার লাশ দাফনের প্রায় ২৫ ঘন্টা পর তার কাটা মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ।রবিবার (২০ আগষ্ট) দুপুর ১২টার দিকে চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীর বালুরচর এলাকার ধান ক্ষেত থেকে তার দেহবিহীন মাথাটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সুত্রে জানা গেছে, খুটাখালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড বালুরচর এলাকার চলাচল সড়কের পার্শ্ববর্তী ধান ক্ষেতে গলাকাটা ও মস্তকবিহীন একটি মৃতদেহ দেখতে পায় স্থানীয়রা। বিষয়টি তাৎক্ষনিক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমানকে জানালে তিনি থানা পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে চকরিয়া থানার এসআই অপু বড়ুয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত জব্দ ও লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

এর আগেশনিবার দিবাগত রাত ১০ টার দিকে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাওয়া ছবিতে পরনের শার্ট, প্যান্ট, পকেটে থাকা টুপি, পায়ের সেন্ডেল দেখে পরিচয় নিশ্চিত করেছেন স্ত্রী সাবেকুন নাহার।

নির্মম খুনের শিকার এই ব্যাক্তির নাম মোজাহের মিয়া (৩৫) ।তিনি পার্বত্য জেলা বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাসিয়াখালীর রঙ্গারঝিরি এলাকার নুর মোহাম্মদের ছেলে। পেশায় তিনি রাবার ব্যবসায়ী।

তার স্ত্রী সাবেকুন নাহার জানিয়েছেন, তার স্বামী রাবার ব্যবসার টাকা তুলতে বৃহস্পতিবার বাড়ী থেকে বের হন। ব্যবসার পাশাপাশি তিনি তাবলীগের চিল্লায়ও যেতেন। এ কারণে পকেটে সমসময় টুপি রাখতেন। তার কোন শত্রুও ছিলনা। কি কারণে এভাবে নির্দয়ভাবে খুন করা হয়েছে তা কেউ জানাতে পারছেনা।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বখতিয়ার উদ্দিন কর্তিত মাথা উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এলাকাবাসীর খবরের ভিত্তিতে ঘটনার তিন দিন পর মাথা উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা বের করার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন

comments