রিকশা আরোহী সেজে ছিনতাই; গ্রেপ্তার দুই ভাই

7

পথচারীর বেশে রিকশা আরোহীদের অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কিংবা কৌশলে মালামাল ছিনতাইয়ের অভিযোগে চট্টগ্রামের বিআরটিসি মোড় থেকে দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা মোট তিনজন পেশাদার ছিনতাইকারী হলেও ছদ্মবেশে চালাতেন রিকশা। নগরীর নিউমার্কেট, রিয়াজউদ্দিন বাজার, কোতোয়ালী মোড়, আমতল মোড়, তিনপুলের মাথা, টেরিবাজারসহ যে কোনো মার্কেট এলাকা ছিল তাদের ছিনতাইয়ের মোক্ষম জায়গা।

সোমবার (২১ অক্টোবর) রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার দুজন সম্পর্কে আপন ভাই।

গ্রেপ্তার দুজন হলেন- বাগেরহাটের মোড়লগঞ্জ এলাকার সৈয়দ আলী শেখের ছেলে মো. শাহ আলম শেখ (৪০) ও মো. হাসান শেখ (২৮)। তারা থাকেন নগরীর সাগরিকা বিটাক এলাকার মুহুরি কলোনিতে।

তিনজনের গ্রুপে ছিল এই দুই সহোদর। একজন চালাতেন রিকশা। যেসব যাত্রীর ব্যাগ ও লাগেজ আছে তাদের রিকশায় তুলতেন। পরে যাত্রীদের সুবিধাজনক জায়গায় নিয়ে নামিয়ে দিয়ে বলতেন রিকশা নষ্ট, যাবেন না। এ নিয়ে যখন রিকশাচালক (আদতে ছিনতাইকারী) ও যাত্রীর মধ্যে তর্ক হতো, অন্য দুজন এসে রিকশায় থাকা লাগেজ ও ব্যাগগুলো নিয়ে দৌঁড়ে পালিয়ে যেতেন। তাতে যদি সুবিধা করতে না পারতো তখন সাথে থাকা অস্ত্রের মুখে রেখে যাত্রীদের সর্বস্ব নিতে পালিয়ে যেতেন। এ রকম অভিনব কায়দায় এতদিন ধরে ছিনতাই করে আসছিলেন তিনজন। কোতোয়ালী থানা পুলিশের অভিযানে সোমবার রাতে বিআরটিসি মোড় থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

কোতোয়ালী থানার ওসি মো. মহসীন জানান, থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের ধরতে বিআরটিসি মোড়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করা গেলেও সে সময় ঘটনাস্থল থেকে কৌশলে পালিয়ে যায় তাদের সহযোগী রিকশাচালক জাহেদ হাসান (২৬)। তাকেও ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। পরে তাদের কাছ থেকে একটি বন্দুক ও একটি রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

ওসি মহসিন বলেন, গ্রেপ্তার দুই ভাই জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, নগরীর রেয়াজউদ্দিন বাজার, টেরিবাজার, হকার্স মার্কেটসহ বিভিন্ন পাইকারি মার্কেটের কাছে জাহেদ রিকশা নিয়ে অবস্থান করে। মালামাল নিয়ে কোনো ব্যক্তি মার্কেট থেকে বের হলে জাহেদ তাকে নিয়ে গন্তব্যে রওনা হয়। আর শাহ আলম ও হাসান রিকশাটিকে অনুসরণ করে।

মন্তব্য করুন

comments