ছোট বোনকে মাস্ক পরিয়ে ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো বড় বোন

655
শেয়ার

সিরিয়ায় এক ধ্বংসাত্মক রাসায়নিক গ্যাস হামলায় আহত হয় ছোট বোন।দুই বোনের কাছে একটি মাত্র অক্সিজেন মাস্ক ছিল। নিস্তেজ শিশু দুটির মুখ ফুটে কিছু বলার শক্তি নেই। এমন অবস্থায় ছোট বোনের জীবন বাঁচাতে মুখে অক্সিজেন মাস্কটি চেপে ধরেছে বড় বোন। আর তাকে কোলে নিয়ে অক্সিজেন মাস্ক পরিয়ে নিজে ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো বড় বোন।

সম্প্রতি এমনি এক করুন দৃশ্য ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়।

গত এক মাসে সিরিয়ায় সিরিজ বোমা হামলায় নিহত প্রায় ৪ শত এরও অধিক, এদের মধ্যে শিশু রয়েছে প্রায় ২ শত। সিরিয়ার পূর্ব ঘৌটা থেকে যাতে লোকজন নিরাপদে বেরিয়ে যেতে পারেন, সেই সুযোগ তৈরি করতে প্রতিদিন পাঁচ ঘণ্টার জন্য মানবিক যুদ্ধবিরতি কার্যকরের নির্দেশ দিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

এরই মধ্যে অভিযোগ এসেছে হামলায় ব্যবহার করা হয়েছে রাসায়নিক অস্ত্র। বিষাক্ত ক্লোরিন গ্যাসে অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিশুসহ অজস্র মানুষ। ঘটনাটি জাতিসংঘ ও অর্গানাইজেশন ফর দ্য প্রোহিবিসন অব কেমিকেল ওয়েপন যৌথ ভাবে তদন্ত করছে।

সিরিয়ার সরকারি আসাদ বাহিনীর অভিযানে গত এক মাসে দুই শতাধিক শিশু সহ চার’শর বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। আর আহতের সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

প্রায় চার লাখ মানুষ থাকে পূর্ব ঘোটায়। ২০১৩ সাল থেকে এলাকাটি বিদ্রোহীদের দখলে চলে যায়। এখন নিয়ন্ত্রণ নিতে গত এক মাস ধরে অভিযান চালাচ্ছে দেশটির সরকারী বাহিনী। সম্প্রতি ৫৬ লাখ মানুষের মানবিক স্বার্থের কথা উল্লেখ করে নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতির একটি খসড়া প্রস্তাব আনে কুয়েত ও সুইডেন। রাশিয়া সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও পশিচমাদের স্বার্থগত বিরোধে এই প্রস্তাবের অনুমোদন কয়েক দফায় পিছিয়ে যায়। তবে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে গত শনিবার ৩০ দিনের অস্ত্র বিরতির বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে।

মন্তব্য করুন

comments