মিয়ানমারে পোপ, দেখা করেছেন সু চি ও সেনাপ্রধানের সঙ্গে

43
শেয়ার

তিনদিনের সফরে মিয়ানমারে পৌঁছেছেন ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস।

ধর্মীয় ও জাতিগত সহিংসতায় উত্তপ্ত মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠকে বসছেন খ্রিস্টান ধর্মের রোমান ক্যাথলিক শাখার প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস।

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং হ্লেইংয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। দেশটির এই সেনা কর্মকর্তার নেতৃত্বে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নৃশংস অভিযান চলছে।

গতকাল সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে তাকে বহনকারী প্লেনটি ইয়ানগুনে অবতরণ করে। এ সময় হাজারো মানুষ রাস্তার দুই ধারে দাঁড়িয়ে স্বাগত জানান। পোপ গাড়ি থেকে তাদের উদ্দেশ্যে হাত নাড়ান; শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

পোপ ফ্রান্সিস এমন সময় মিয়ানমারে গেলেন যখন রোহিঙ্গাদের ‘জাতিগত নিধনে’ সারাবিশ্বেই নিন্দার ঝড়।

মঙ্গলবার সু চির সঙ্গে আলোচনার পর দেশটির রাজধানী নেইপিদোতে কূটনীতিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে অংশ নেবেন পোপ।

এরপর বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) আসবেন বাংলাদেশে।

রওয়ানা দেওয়ার সময় তিনি বলেছিলেন, মিয়ানমার এবং বাংলাদেশ সফরে যাচ্ছি। সবার মাঝে বন্ধুত্বের বার্তা ছড়িয়ে দিতে চাই।

রোহিঙ্গা সঙ্কটের মাঝে দেশটিতে সু চির সঙ্গে পোপের মঙ্গলবারের এই বৈঠকের দিকে নজর রাখছে পুরো বিশ্ব।

চলতি বছরের ২৪ আগস্টের পর থেকে রাখাইন রাজ্যে অব্যাহত অত্যাচারে এখন পর্যন্ত পালিয়ে আসা রোহিঙ্গার সংখ্যা সাত লাখের বেশি বলে জাতিসংঘ জানাচ্ছে। বেসরকারি হিসেবে সংখ্যাটা আরও লাখ খানেক বেশি। এছাড়া আগে থেকেই চার লাখের বেশি রোহিঙ্গা কক্সবাজারে থাকেন। এতে মোট রোহিঙ্গা সংখ্যা ১১ লাখ ছাড়িয়েছে।

মন্তব্য করুন

comments