X

খোঁজ পাওয়া গেল ১১৬ যাত্রী নিয়ে নিখোঁজ মিয়ানমারের বিমান

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ১১৬ আরোহীবাহী বিমানটির ধ্বংসাবশেষ আন্দামান সাগরে পাওয়া গেছে। স্থানীয় এক কর্মকর্তা ও দেশটির বিমানবাহিনীর একটি সূত্র বার্তাসংস্থা এএফপিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বুধবার দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের মিয়েক শহর থেকে রাজধানী ইয়াঙ্গুনের উদ্দেশে যাত্রা শুরুর পর পরই বিমানটি নিখোঁজ হয়। সেনাপ্রধানের কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় বুধবার দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটের দিকে বিমানটির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। যোগাযোগ বিচ্ছিন্নের সময় সেনাবাহিনীর ওই বিমান দাওয়েই শহরের ২০ মাইল পশ্চিমের আকাশে ছিল।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আন্দামান সাগরের ওপর দিয়ে উড়তে থাকা বিমানটি নিখোঁজের পরপরই তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। সাগরে জাহাজ মোতায়েনের পাশাপাশি বিমান থেকেও বিমানের খোঁজে অনুসন্ধান চলছে।

ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরের একটি সূত্র বলছে, উড্ডয়নের সময় বিমানটিতে ১০৫ যাত্রী ও ১১ ক্রু ছিলেন। বিমানটির অধিকাংশ যাত্রীই দেশটির উপকূলবর্তী অঞ্চলের সেনা পরিবারের সদস্য বলে ধারণা করা হচ্ছে। বার্তাসংস্থা এএফপিকে ওই সূত্র জানিয়েছে, আমাদের ধারণা যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে বিমানটির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে।

এদিকে কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার জানিয়েছেএকই কথা। আন্দবাজার জানান,শতাধিক যাত্রী-সহ আন্দামান সাগরে ভেঙে পড়ল মায়ানমার সেনার একটি বিমান। আজ, বুধবার, স্থানীয় ভারতীয় দুপুর ১টা ৩৫ থেকে খোঁজ মিলছিল না বিমানটির। দক্ষিণ মায়ানমারের ম্যেইক এবং ইয়াংগন শহরের মাঝামাঝি শেষ খবর পাওয়া গিয়েছিল বিমানটির। নিখোঁজ বিমানটির খোঁজে দ্রুতই শুরু হয় তল্লাশি। জাহাজ এবং বিমান নিয়ে চলে এই তল্লাশি অভিযান। কয়েক ঘণ্টা পরে বিমানটির ধ্বংসাবশেষের খোঁজ মেলে।

মন্তব্য করুন

comments

Comments are closed.