X

মুম্বাই বিস্ফোরণ মামলার আসামী আবু সালেমের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন মনিকা বেদী!

১৯৯৩ সালে মুম্বাই ধারাবাহিক বিস্ফোরণের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছে প্রধান অভিযুক্ত আবু সালেম। তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। এই কুখ্যাত দুষ্কৃতীর এক সময়ের সঙ্গী ছিলেন এক বিখ্যাত বলিউড নায়িকা, তিনি হচ্ছেন মনিকা বেদী। স্টেজ পারফরম্যান্সের পাশাপাশি, বেশ কয়েকটি হিন্দি ছবিতে কাজ করেছেন মনিকা বেদী। তবে, জানেন কি কীভাবে তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় আবু সালেমের?

সম্প্রতি একটি জনপ্রিয় বিনোদন ম্যাগাজিনে সাক্ষাত্কার দেওয়ার সময় মনিকা বেদী তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে মুখ খোলেন। বেরিয়ে আসে অনেক গোপন তথ্য।
১৯৭৫ সালে পাঞ্জাবে জন্মগ্রহণ করলেও, কয়েক বছরের মধ্যেই বাবা-মায়ের সঙ্গে নরওয়ে চলে যেতে হয় মনিকাকে। সেখানে জীবনের ১৬ বছর কাটানোর পর ভারতে ফিরে আসেন তিনি। কথ্থক নাচের তালিম নেন। কিংবদন্তী অভিনেতা মনোজ কুমারের ছেলে কুণালের বিপরীতে সেই সময় একটি ছবিতে অভিনয়ও করেছিলেন মনিকা। যদিও, ছবিটি শেষ পর্যন্ত রিলিজ হয়নি।

মনিকার কথায়, এর কিছুদিন পরই আবারো ভারত ছেড়ে চলে যান তিনি। সেই সময় ফোনে তাঁর সঙ্গে প্রথম যোগাযোগ হয় আবু সালেমের। তবে প্রথমে নিজেকে ওই নামে পরিচয় দেয়নি আবু সালেম। দুবাইতে একটি অনুষ্ঠানে মনিকাকে পারফর্ম করতে বলে এই দুষ্কৃতী। রাজি হওয়ার পর থেকে তার সঙ্গে ক্রমেই ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে মনিকার।

নিজেকে অপরাধ জগত্ থেকে দূরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করে ২০০০ সালের নভেম্বর মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে লস অ্যাঞ্জেলসের একটি মসজিদে মনিকা বেদীকে বিয়ে করে আবু সালেম। বেশ কয়েকটি জায়গায় স্ত্রীকে নিয়ে অনুষ্ঠানও করে সে। সাক্ষাত্কারে মনিকা বলেন, চেষ্টা করেও শেষ রক্ষা করতে পারেনি আবু।

ফের নতুন করে সেই অপরাধ জগতেই প্রবেশ করে। নাম জড়ায় আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিম ও তার সঙ্গী ছোটা শাকিলের সঙ্গে। সেই সময় স্বামীর অপরাধের ফল ভোগ করতে হয় স্ত্রীকেও। আবু সালেমের সঙ্গে ইন্টারপোলের হাতে গ্রেফতার হন মনিকা। চার বছরের কারাবাস হয় তাদের। তার মধ্যে দু’বছর পর্তুগালের জেল ও বাকি দু’বছর ভারতের জেলে কাটাতে হয় আবু ও মনিকাকে। এরপর থেকে ক্রমেই দু’জনের মধ্যে দূরত্ব বাড়তে থাকে।

মনিকার দাবি, ‘বিগ বস’ প্রতিযোগিতায় ভাগ নেওয়ার সময় তিনি জানতে পারেন আবু সালেম নতুন করে আবার বিয়ে করেছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে অপরাধ জগতের সঙ্গে যোগ। মন থেকে আবুর ভালো চাইলেও, এরপর আর কোনওভাবেই যোগাযোগ হয়নি তাদের।

মন্তব্য করুন

comments