X

হাই কোলেস্টরল হলে করণীয়

রক্তের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হল কোলেস্টেরল। রক্তে উপস্থিত ৭৫ শতাংশ কোলেস্টেরল স্বাভাবিকভাবে আমাদের দেহে এমনিই উৎপাদন হয়। কিন্তু বাকি ২৫ শতাংশ কোলেস্টেরল আসে বিভিন্ন প্রাণীজ খাবার থেকে।

এখন এই কোলেস্টেরল ভালো না খারাপ? রক্তে উপস্থিত এই কোলেস্টেরল দুধরনের, একটি হচ্ছে LDL (লো ডেনসিটি লিপিড প্রোফাইল) ও অন্যটি HDL (হাই ডেনসিটি লিপিড প্রোফাইল)। এর মধ্যে HDL-কে বলা হয় ‘গুড কোলেস্টেরল’ আর LDL-কে বলা হয় ‘ব্যাড কোলেস্টেরল’।

এখন এই গুড ও ব্যাড কোলেস্টেরলের মধ্যে ভারসাম্যের অভাব ঘটলেই শরীরে বিভিন্ন রকম উপসর্গ দেখা দেয়। হৃদরোগ, হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। তাই দেহে কোলেস্টেরলের মাত্রা ঠিক রাখতে আমাদের প্রত্যেকেরই উচিত কিছু খাদ্যাভ্যাস মেনে চলা। লাইফস্টাইলেও কিছু পরিবর্তন আনা।

কী খাবেন
– ওটস, বার্লির মত পুষ্টি উপাদানে ভরপুর দানাশস্য
– স্যালমন, টুনা ও সার্ডিনের মত ফ্যাটি মাছ
– ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডে সমৃদ্ধ ভেজিটেবল অয়েল
– মটরশুঁটি
– চিনাবাদাম ও কাঠবাদাম
– অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ ফল ও শাকসবজি

কী খাবেন না
– লাল মাংস
– দুগ্ধজাত দ্রব্য
– প্রক্রিয়াজাত মাংস
-স্যাচুরেটেড তেল যেমন নারকেল ও তাল তেল
– ভাজা খাবার
– ধূমপান ও মদ্যপান

এছাড়া শরীরে কোলেস্টরেলের মাত্রা ঠিক রাখতে সবসময় নিজেকে শারীরিকভাবে সচল রাখা উচিত। প্রতি রাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানো উচিত।

মন্তব্য করুন

comments