X

কক্সবাজারে পর্যটকদের জন্য ‘কারাওকে’ নিয়ে আসলো ‘হোটেল সী-ভিউ’

পর্যটন শহর কক্সবাজারে পর্যটকদের বিনোদন এর নতুন মাত্রা হিসেবে ‘সী-ভিউ কারাওকে অন’ মিউজিক লাউঞ্জ চালু করলো ‘হোটেল সী-ভিউ’। বিশ্বের বৃহত্তম এই সমুদ্র সৈকতের সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ দেশি বিদেশী পর্যটকের সমাগম হলেও শুধুমাত্র সমুদ্র দর্শন ও সমুদ্র স্নান করা ছাড়া আক্ষরিক অর্থে বিনোদন এর আর কোন মাধ্যম শহরে নেই।পাঁচতারকা মানের হোটেলগুলোতে উচ্চবিত্তদের জন্য কিছু বিনোদনের আয়োজন থাকলেও মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্ত পর্যটকদের জন্য অন্য কোন ব্যবস্থা নেই।এছাড়া রাতে সৈকতের নিরাপত্তা বিধিনিষেধ সীমাবদ্ধতার কারণে সন্ধ্যার কিছু সময় পর হতেই সৈকতের পর্যটক সমাগম একেবারে সীমিত হয়ে আসে।এই সময়ে মূলত ঝিনুক মার্কেটগুলোতে ঘোরাফেরা,কেনাকাটা আর খাবারের দোকানগুলোতে বা হোটেল কক্ষে অলস সময় কাটানো ছাড়া আর কিছুই করার থাকেনা।

সম্প্রতি শহরের হলিডে মোড়ে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মানের একটি ‘ফিশ একুরিয়াম’ বা বিভিন্ন প্রজাতির বিরল সামুদ্রিক মাছ প্রদর্শনী কেন্দ্র চালু হলে তা পর্যটকদের আকৃষ্ট করে এবং প্রায় প্রতিদিনই এখানে বিপুলসংখ্যক পর্যটক সমাগম হয়।

হোটেল সী-ভিউ’র উদ্যোগে সম্প্রতি পর্যটকদের বিনোদনের নতুন মাধ্যম হিসেবে কক্সবাজারে চালু হয়েছে “সী-ভিউ কারাওকে অন” মিউজিক লাউঞ্জ। কারাওকে হচ্ছে একটি মিউজিক পারফরমেন্স এর পদ্ধতি। যখন কোন স্টেরিও সং থেকে প্রধান কন্ঠ মিউট করে ফেলা হয় তখন সেই গানটির সব ইন্সট্রুমেন্টাল সিম্ফনি থেকে যায় শুধু লীড ভোকালটা থাকেনা, তখন এই মিউজিক ট্র্যাক এ যে কেউ গানটা গাইতে পারে ব্যাকগ্রাউন্ডে সেই একচুয়াল মিউজিকটাই বাজবে যা শ্রোতারা শুনেছেন, শুধু আসল কন্ঠের জায়গায় নতুন কেউ গাচ্ছে। সাথে থাকে সেই গানটির লিরিক যাতে শিল্পী ঐ লিরিক দেখে গানটি পরিবেশন করতে পারে। আজকাল এভাবে অনেকেই গান পারফর্ম করছেন কিন্তু এটা আসলে প্রফেশনাল কোন সিস্টেম না। এমেচার কোন শিল্পীরাই এতে পারফর্ম করে থাকে।

হোটেল অতিথি ছাড়াও অন্যান্য সকল পর্যটকদের জন্যেও রাখা হয়েছে এই ব্যবস্থা।পেশাদার সাউন্ডপ্রুফ স্টুডিও পরিবেশে মঞ্চ আদলে আলোকসজ্জা ও শব্দ নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতিতে দেশি বিদেশী জনপ্রিয় সব গানের মিউজিকের সাথে নিজের কন্ঠেই পর্যটকেরা গাইতে পারবেন পছন্দের যত গান।দেয়ালে লাগানো স্ক্রিনে ভেসে উঠবে গানের কথা।বাংলা,হিন্দি,ইংরেজি গানসহ প্রায় ৭৫০০ গান ও শিল্পীর নামের তালিকা থেকে পছন্দের গান গাওয়ার পর স্কোর যাচাই এবং নিজের গাওয়া গান রেকর্ডিং এর ব্যবস্থা।থাকছে গিটার ,কিবোর্ডসহ অন্যান্য সংগীতযন্ত্র বাজানোর সুযোগ।

মন্তব্য করুন

comments