X

শ্রীদেবীর চিরবিদায়: তার শেষবেলার কিছু ছবি

ভারতীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবী আর নেই।

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শনিবার রাতে দুবাইয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শ্রীদেবী কাপুরের মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৫৪ বছর।

শিশু শিল্পী হিসেবে চার বছর বয়স থেকে অভিনয় শুরু করা শ্রীদেবী তামিল, তেলেগু, মালায়লাম, কানাড়া ও হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন
শ্রীদেবীর মৃত্যুর সংবাদ গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন তাঁর স্বামীর ছোট ভাই সঞ্জয় কাপুর।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দুবাই আসেন শ্রীদেবী। তাঁর সঙ্গে ছিলেন স্বামী ও ছোট মেয়ে। সেখানে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন শ্রীদেবী।

শিশুশিল্পী হিসেবে বলিউডে অভিষেক হয় শ্রীদেবীর। চিত্তাকর্ষক চোখ, রুপালি পর্দায় উপস্থিতি আর অভিনয় দক্ষতা তাঁকে তুমুল জনপ্রিয়তা এনে দেয়। তিনি হিন্দি ছবির পাশাপাশি তামিল, তেলেগু ও মালায়ালম ছবিতে সমানতালে কাজ করেছেন।

বৈচিত্র্যময় এ অভিনয়শিল্পী ১৯৯৭ সালে জুদাই চলচ্চিত্রের মুক্তির পর বিরতি নেন। ২০১২ সালে চলচ্চিত্রে ফেরেন ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ নিয়ে।
২০১৩ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী পদকে ভূষিত করে। অভিনয়ের জন্য তিনি ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন পাঁচবার। ২০১৫ সালে পেয়েছেন ফিল্মফেয়ার গ্ল্যামার অ্যান্ড ফ্যাশন অ্যাওয়ার্ড।

শ্রীদেবীর একসময়ের সহকর্মী অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে বর্তমানের তারকা—শোকে মুহ্যমান সবাই। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ রোববার সকালেই তাঁর শোকবার্তা পাঠিয়েছেন। প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধীর কার্যালয় এ অভিনেত্রী মৃত্যুতে জানিয়েছে তাদের শোক।

যে ছবিগুলো এখন শুধুই স্মৃতি। বর ও কনের সঙ্গে তোলা শ্রীদেবীর ছবি।

প্রধানমন্ত্রী মোদি টুইটারে তাঁর বার্তায় বলেন, ‘খ্যাতনামা অভিনেত্রী শ্রীদেবীর অকালমৃত্যু আমাকে কষ্ট দিয়েছে। চলচ্চিত্রশিল্পের এক অসাধারণ ব্যক্তিত্ব ছিলেন তিনি। দীর্ঘ অভিনয়জীবনে নানা ভূমিকায় স্মরণীয় অভিনয় করেছেন। তাঁর পরিবার এবং অসংখ্য ভক্তের প্রতি সমবেদনা জানাই। তাঁর পরলোকগত আত্মার শান্তি কামনা করি।’

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর কার্যালয় টুইটারে শোক জানিয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ‘শ্রীদেবীর হঠাৎ ও অকালমৃত্যুর ঘটনা শুনে আমরা শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছি। তিনি ছিলেন এক অসামান্য প্রতিভাময়ী অভিনেত্রী। বিভিন্ন ভাষায় চলচ্চিত্রে কাজ করে তিনি সুনামের স্বাক্ষর রেখেছেন। তাঁর পরিবারের প্রতি সান্ত্বনা জানাই। তাঁর পরলোকগত আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

খ্যাতনামা অভিনেতা কমল হাসান তাঁর শোকবার্তায় বলেছেন, সেই ছোটবেলা থেকে এক অসামান্য নারী হয়ে ওঠা শ্রীদেবীকে আমি দেখেছি। আজ মুহূর্তেই মনে পড়ছে শ্রীদেবীর সঙ্গে অনেক সুখস্মৃতি। সর্বশেষ তাঁর সঙ্গে দেখা হওয়ার স্মৃতি মনে পড়ছে। “সাদমা”র কথা মনে পড়ছে। আমরা তাঁকে সত্যিই মিস করব।’

অভিনেতা থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া দক্ষিণের সুপারস্টার রজনীকান্ত টুইটারে শোক জানিয়ে লিখেছেন, ‘আমি শোকাহত। ভীষণ কষ্ট পেয়েছি। আমি আমার এক প্রিয় বন্ধুকে হারালাম। আর চলচ্চিত্র জগৎ হারাল এক সত্যিকারের কিংবদন্তিকে।’

লন্ডনের মেয়র সাদিক খানও শ্রীদেবীর মৃত্যুতে শোক জানিয়ে টুইট করেছেন।

তিনি লিখেছেন, “সাম্প্রতিক ভারত সফরের সময় বলিউড আইকন শ্রীদেবীর সঙ্গে দেখা হওয়ার মুহূর্তটি ছিল উপভোগ্য; অসম্ভব মেধাবী এ অভিনেত্রী ও প্রযোজকের মৃত্যুর খবরে দুঃখ পেয়েছি।”

মন্তব্য করুন

comments