বাসার বাহির থেকে তালা দিয়ে আসিনি: অপু বিশ্বাস

128
শেয়ার

‘আমি বাসার বাহির থেকে তালা দিয়ে আসিনি। ভেতর থেকেই তালা দেওয়া। ভেতরে শেলি আপুসহ অন্যান্যরা রয়েছেন। আমি নেই বলেই তারা ভেতর থেকে তালা দিয়ে রেখেছেন। এটা দোষের কি!’ নিজের ফেসবুকে এভাবেই লিখেছেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস।

গত বৃহস্পতিবার একমাত্র পুত্র সন্তান আব্রামকে ঘরে তালাবন্দি করে কলকাতায় চিকিৎসার জন্য গেছেন অপু বিশ্বাস-এমন খবর মিডিয়াতে বেশ ফলাও করে প্রচার করা হয়। যা নজরকাড়ে অপু বিশ্বাসেরও। এর উত্তরে তিনি এ তথ্য জানান।

অপু বলেন, আমাকে বিপদে পড়েই কলকাতা একাই চলে আসতে হয়েছে। জয়কে নিয়ে আসার পরিস্থিতি ছিল না। কারণ জয়ের শরীরটা খুব ভালো নয়। তাই ওকে নিয়ে আসিনি। কিন্তু জয়কে রাখার লোক ঢাকায় খুঁজে পাইনি। তাই বাসায় আমার বোন শেলির কাছেই রেখে আসছি।

অপু আরও বলেন, কিছুদিন আগেইতো আব্রামের জন্মদিন অনুষ্ঠান করা হয়েছিল। জয়ের দাদা-দাদি বা ফুপু সেই অনুষ্ঠানে আসেনি। এমনকি তারা কোনো দিন জয়কে দেখতে অপুর বাসায় আসেননি। যদিও অপুর বাসার একদম কাছেই আব্রামের ফুপুর বাসা। তারপরও আব্রামকে কোনো দিন সে দেখতে আসেনি। সেজন্যই অপু তাদের কাছে তার সন্তানকে রেখে আসতে ভরসা পাননি।

জানা গেছে, সম্প্রতি ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খানের সঙ্গে গোপন বিয়ে ও সন্তান জন্মদানের কথা প্রকাশ্যে আনা নায়িকা অপু বিশ্বাস গত বৃহস্পতিবার রাতে বাথরুমে পা পিছলে পড়ে যান । এতে সিজারের সময় করা সেলাই ফেটে রক্ত বের হয়। প্রাথমিকভাবে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নেন এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য শুক্রবার সকালে কলকাতায় পৌঁছান অপু। সেখানকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এসময় চলচ্চিত্র অঙ্গনে গুঞ্জন ওঠে একমাত্র পুত্র সন্তান আব্রামকে ঘরে তালাবন্দি করে কলকাতায় চিকিৎসার জন্য গেছেন অপু বিশ্বাস। ঘটনাটি শাকিব খানের কানেও যায়। তিনি বৃহস্পতিবার ব্যাংকক থেকে শুটিং শেষ করে দেশে এসেই এসব শুনতে পান। এরপরের দিন শুক্রবার সন্ধ্যায় ঘটনার সত্যতা প্রমাণে ছুটে যান অপু বিশ্বাসের নিকেতনের বাসায়।

সে সময় শাকিব বলেন,‘আমি ১৭ নভেম্বর ভোর চারটার দিকে থাইল্যান্ড থেকে ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের ‘মাস্ক’ ছবির শুটিং শেষ করে দেশে ফিরেছি। আর সেখান থেকে ফেরার আগে আব্রামের জন্য আমি বেশকিছু শপিং করেছি। আর সেগুলো নিয়েই আজ রাত আটটার দিকে অপুর নিকেতনের বাসায় যাই। গিয়ে দেখি একজন সহকারীর কাছে জয়কে তালাবন্দী করে অপু কলকাতায় চলে গিয়েছেন। আমি বাড়ির বাইরে অপেক্ষা করছি।’

শাকিব আরও বলেন, ‘কী এমন ঘটল যে এক বছরের বাচ্চা ছেলেকে বাইরে থেকে তালা দিয়ে বিদেশে যেতে হবে? দেশে কি কোনো চিকিৎসা ছিল না? শুনেছি, অপু এখন নিয়মিত জিমে যান, ব্যায়াম করেন। তাহলে তখন শরীরের কোনো সমস্যা না হলে বাথরুমে পড়েই পুরোনো সেলাইয়ের জায়গা ছিঁড়ে যায়! এটা কি বিশ্বাসযোগ্য? যদি তাই হয়ে থাকে, তাহলে সে আমার ছেলেকে আমার বাবা-মায়ের কাছে রেখে যেতে পারত, নইলে সঙ্গে নিয়ে যেত। অবশ্যই এর পেছনে অন্য কোনো উদ্দেশ্য রয়েছে। ছেলের প্রতি মায়া দরদ থাকলে কাজের মেয়ের জিম্মায় রেখে কখনো বিদেশে যেতে পারে না। তাও আবার ঘরের বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে!’

মন্তব্য করুন

comments