বাল্যবিবাহ ও নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করবে এভ্রিল ফাউন্ডেশন

27
শেয়ার

সদ্য অনুষ্ঠিত মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৭ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েও মুকুট হারিয়েছিলেন চট্টগ্রামের মেয়ে এভ্রিল। বিয়ে ও ডিভোর্সের তথ্য গোপন করার অভিযোগে মুকুট হারাতে হয়েছিল তাকে।

সেই শোক ভুলে নতুন করে যাত্রা শুরু করেছেন এভ্রিল, নিজের নামে ‘এভ্রিল ফান্ড’ নামে চ্যারিটি ফাউন্ডেশন গঠন করেছেন।

১৬ বছর বয়সে বিয়ে, তারপর তিনমাসের বৈবাহিক সম্পর্কের সমাপ্তি টেনে এভ্রিল নেমে পড়েন জীবন যুদ্ধে। বাংলাদেশের আইনে বাল্যবিবাহকে বিয়ে হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া না হলেও মিস ওয়ার্ল্ড কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, তথ্য গোপন করেছেন এভ্রিল। তাই তাকে বাদ পড়তে হয়েছে।

দেশের আইনে বাল্য বিয়ে অবৈধ। তাই তার সেই বিয়েকে তিনি বিয়ে ভাবতে নারাজ। পরিবারের কারণে বাল্য বিয়ে করতে বাধ্য হয়েছিলেন এভ্রিল- এমনটাই তার দাবি। যে ভুলের জন্য আজ মুকুট হারাতে হলো তাকে।

মিস ওয়ার্ল্ডের আন্তর্জাতিক আসরে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে না পারলেও এভ্রিল নেমে পড়েছেন বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে দেশসেবায়। এ লক্ষ্যে তিনি সৃষ্টি করেছেন এভ্রিল ফাউন্ডেশন। গত ৬ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে এভ্রিল ফাউন্ডেশনের পেইজটি সবার জন্য উন্মোচন করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে এভ্রিল গ্লিটজকে বলেন, “শুধু বাল্যবিবাহই নয়, নারীর ক্ষমতায়নেও আমার সংগঠন কাজ করবে। এ জন্য আমার আয়ের ৭৫ ভাগ আমি এ চ্যারিটিতে দেব। সারা দেশে ভলান্টিয়ার থাকবে নারীরা। তারা অবহেলিত, নির্যাতিত নারীর পাশে দাঁড়াবেন। সমাজের বেশ কিছু বিত্তশালী মানুষও আমার এই ফান্ডের সঙ্গে থাকবেন।”

এভ্রিল জানান, এভ্রিল ফাউন্ডেশন সারাদেশে স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে গ্রাম পর্যায়ে বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করবে।

মুকুট হারানোর পর সিনেমা, নাটক ও মিউজিক ভিডিওর প্রচুর অফার পাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন এ সুন্দরী। তবে এখনই নয় আগামী এক মাস সময় নিয়েছেন সিদ্ধান্ত নিতে। এরপরই পুরোদমে শোবিজে যাত্রা করবেন এভ্রিল।

মন্তব্য করুন

comments