বাংলাদেশি পাসপোর্ট এবং এআইডিসহ ৭ রোহিঙ্গা আটক

22

সহযোগিতাকারী ৪ জন দালালের নাম পেয়েছে পুলিশ

টেকনাফের ক্যাম্প থেকে পালিয়ে তুরস্কের ভিসার আবেদন করতে ঢাকা যাওয়ার সময় চট্টগ্রামের আকবরশাহ এলাকা থেকে বাংলাদেশি পাসপোর্টসহ তিন রোহিঙ্গা যুবক গ্রেফতার হয়েছে। একই সময় বায়েজিদ এলাকা থেকে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্রসহ গ্রেফতার হয়েছেন আরও চারজন।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে নগরের সিডিএ এক নম্বর রোড মীর সিএনজি ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

আকবরশাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন মিয়ানামারের মংডু জেলার দুমবাই এলাকার আলী আহমদের ছেলে মো. ইউসুফ (২৩) ও মো. মুসা (২০) এবং মংডু জেলা চালিপাড়া এলাকার মো. জমির হোসেনের ছেলে মো. আজিজ (২১)। তিনজনই কক্সবাজার উখিয়া থাইংখালী হাকিমপাড়া ক্যাম্পে বসবাস করছিলেন।

গ্রেপ্তারকৃত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি পাসপোর্ট

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা – চট্টগ্রাম মহাসড়কের আকবরশাহ এলাকা থেকে ইউসুফ, মুসা এবং আজিজ নামে ৩ যুবককে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে ৩টি পাসপোর্ট জব্দ করা হয়। প্রথমে তারা নিজেদের নোয়াখালীর বাসিন্দা বলে দাবি করলেও পরে রোহিঙ্গা বলে স্বীকার করে। তারা জানায়, তুরস্ক দূতাবাসে যাচ্ছিলো ভিসা নিতে। রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট পাইয়ে দেয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতাকারী ৪ জন দালালের নামও পেয়েছে পুলিশ।

ওসি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী জানান, ইউরোপের একটি রোহিঙ্গা সংগঠনের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করেছিলেন। তাদের পরিবারের সকল সদস্যের কাছে বাংলাদেশি মোবাইল সিমকার্ড রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা বলেছেন, ক্যাম্প থেকেই তারা এই সিমগুলো কিনেছেন।

ওসি বলেন, সিডিএ এক নম্বর রোডে সন্দেহজনক গতিবিধি দেখে তিন যুবককে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসময় তাদের কথাবার্তা সন্দেহ হয়। পরে পুলিশ ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের থানায় নিয়ে আসে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা তিনজনই স্বীকার করেন, মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে এসেছেন এবং দালালের মাধ্যমে পাসপোর্ট করিয়েছেন।এরপর তারা তুরস্কের ভিসা আবেদনের জন্য ঢাকায় যাচ্ছিলেন।

ওসি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, গ্রেফতারকৃতের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) তাদের আদালতে পাঠানো হয়।

এদিকে বায়েজিদ এলাকা থেকে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্রসহ গ্রেফতার হয়েছেন আরও চারজন। মোবাইল সিম ব্যবহারসহ বিনা বাধায় রোহিঙ্গারা পাসপোর্ট করেছিলো বলে জানায় পুলিশ। বায়েজিদ থানা পুলিশ বার্মা কলোনী থেকে এনআইডি কার্ডসহ আরও ৪ রোহিঙ্গাকে আটক করে। এরমধ্যে ৩ জন নারী এবং ১ জন পুরুষ। নিধারিত ক্যাম্প ছেড়ে চট্টগ্রামে আসার ব্যাপারে তারা কোনো সুনির্দিষ্ট কারণ জানাতে পারেনি।

বায়োজিদ থানার ওসি আতাউর রহমান খন্দকার জানান, জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে কোনো সন্তোষজনক উত্তর পাইনি। একবার বলছেন, বেড়াতে এসেছি, আরেকবার বলছেন, এখানে থাকতে এসেছি।

পাসপোর্ট এবং এআইডিসহ ৭ রোহিঙ্গাকে আটকের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার বিকালে পাসপোর্ট করাতে এসে বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয় থেকে এক রোহিঙ্গা যুবককে আটক করা হয়েছিলো।

মন্তব্য করুন

comments