X

তিনদিনের মধ্যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে জেব্রা ক্রসিং: মেয়র নাছির

আগামী তিনদিনের মধ্যে নগরীর সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে জেব্রা ক্রসিং তৈরির কাজ শেষ করা হবে। সেই সাথে স্পিডব্রেকার, যাত্রীছাউনি ও ফুটওভার ব্রিজ তৈরির যথাযথ ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হবে।

নগরীর সার্কিট হাউস মিলনায়তনে গতকাল সোমবার বিকেলে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, ম্যানেজিং কমিটি, সুশীল সমাজ, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সাথে বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসন আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

সিটি মেয়র বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন করার কোন সুযোগ নেই। তারা যে দাবিতে আন্দোলন করেছে, তার সঙ্গে আমি একমত। এসব দাবি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সরকার ইতোমধ্যে কাজও শুরু করে দিয়েছে। তবে সবকিছু বাস্তবায়নে কিছুটা সময় প্রয়োজন। কিন্তু পরে তাদের আন্দোলনে রাজনীতি প্রবেশ করে। আমরা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কখনো অশালীন কিছু আশা করি না।

তিনি আরো বলেন, নিরাপদ সড়কের জন্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন পয়েন্টে ফুট ওভারব্রিজ, যাত্রীছাউনি, স্পিডব্রেকার নির্মাণ, সড়ক সংস্কারসহ সব কাজ করা হবে। যেহেতু নগরের প্রায় সব সড়কে বিভিন্ন সেবা সংস্থার উন্নয়ন কাজ চলছে তাই সাময়িক অসুবিধা মেনে আমাদের কিছুটা সময় দিতে হবে। আগামী ২ বছরের মধ্যেই সব সড়ক সংস্কারসহ নগরীর দৃশ্যমান পরিবর্তন সবার চোখে পড়বে।

মেয়র বলেন, আমরা যেকোনো কাজের লাগামহীন সমালোচনা করি, কিন্তু আত্মসমালোচনা করি না। কোন সংস্থার কী কাজ, কীভাবে কোন্ কাজ করা উচিত এসব না জেনেই কথা বলি। বাইরের দেশে গিয়ে ট্রাফিক আইন মানলেও নিজ দেশে তা মানি না। অথচ নিরাপদ সড়কের জন্য সবার আগে নিজেকেই ট্রাফিক আইন মানতে হবে।

বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক, মহসিন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর অঞ্জন কুমার নন্দী, রাউজান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ প্রমুখ।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. হাবিবুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, স্থানীয় সরকারের পরিচালক দীপক চক্রবর্তী, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মোমিনুর রশিদ আমিন, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নুরুল আলম নিজামী, চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর প্রদীপ চক্রবর্তী প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

comments