চট্টগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১১১ বছর পূর্তি উৎসব শুরু

33
শেয়ার

গতকাল শুক্রবার থেকে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহি স্কুল চট্টগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১১১ বছর পূর্তি উৎসব ও দুই দিনের মিলন মেলা শুরু হয়েছে।সকাল ৯টায় বিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে উৎসব শুরু হয়। এসময় প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন।

সকালে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের নেতৃত্বে বর্ণিল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে উৎসব শুরু হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান।প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের আয়োজনে এ উৎসবে অংশ নেন আড়াই হাজার প্রাক্তন ছাত্র।

বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে শোভাযাত্রার উদ্বোধন করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, এই স্কুল জাতিকে অনেক আলোকিত মানুষ উপহার দিয়েছে। তারা দেশ গঠনে এখন ভূমিকা রাখছেন।

প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে দুই কিলোমিটার দীর্ঘ এ শোভাযাত্রায় প্রায় আড়াই হাজার শিক্ষার্থী যোগ দেন।

বিকেলে জিইসি কনভেনশন হলে স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

তিনি বলেন, অনেক শিক্ষক ফাঁকিবাজ। তারা শিক্ষার্থীদের সঠিকভাবে পাঠদান করেন না। বরং শিক্ষার্থীদের দোষারোপ করেন। কোচিং ও গৃহশিক্ষকের কাছে পড়ানোর জন্য বাধ্য করেন। যারা শিক্ষা দিচ্ছেন এবং নিচ্ছেন তাদের মধ্যে সুসম্পর্ক থাকতে হবে।

স্মৃতিচারণ কালে স্কুলের প্র্ক্তান ছাত্র একুশে পদক প্রাপ্ত অর্থনীতিবিদ প্রফেস ড. মইনুল ইসলাম বলেন, আমি এম ই স্কুলে থাকাকালীন বিতর্কে জয়ী হয়ে কবি জসীম উদদীনের কাছ থেকে পুরস্কার নিয়েছি। আমি সাহস নিয়ে সত্য কথা বলার চেষ্টা করি। সত্য কথা বলা নিয়ে কারও সঙ্গে আপস করিনি।

প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সভাপতি ও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরোয়ারের সভাপতিত্বে সভায় অতিথি ছিলেন প্রতিরক্ষা ক্রয় মহাপরিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাহেদুল হক পিএসসি, কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন, দৈনিক আজাদী সম্পাদক এমএ মালেক, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আবু হেনা মশিউজ্জামান, স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবু ইউসুফ।

একই ভেন্যুতে মুক্তিযোদ্ধা, গুণীজন ও শিক্ষকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। রাতে ছিল অর্থহীন ব্যান্ডের পরিবেশনা।অনুষ্ঠানে স্কুলের ২০ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেয়া হয়।

শনিবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় থাকবে কৌতুক ও জাদপ্রদর্শন, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এবং শাকিলা জাহান, রূপা, প্রেমসুন্দর বৈঞ্চব ও নীলিমার গান পরিবেশন।। সন্ধ্যায় থাকবে শিল্পী নচিকেতার পরিবেশনা।

মন্তব্য করুন

comments