X

আটকের পর মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেলেন সাইফুর’স এর শিক্ষক-কর্মকর্তা

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা তোয়াক্কা না করে ভর্তি কার্যক্রম চালানোর অপরাধে অভিযান চালিয়ে সাইফুর’স কোচিং সেন্টারের ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে জেলা প্রশাসন। এসময় তাদের কাছ থেকে ভর্তি নির্দেশিকা সম্বলিত এক বস্তা লিফলেটও জব্দ করা হয়।এক শিক্ষক ও দুই কর্মকর্তাসহ তিনজনকে আটকের তিন ঘণ্টা পর মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।নগরীর মুসলিম ইন্সটিটিউট হলে সাইফুর’স মঙ্গলবার বিসিএস, আইএলটিএস ও স্পোকেন ইংলিশ কোর্সের জন্য সেমিনার ও ফ্রি ক্লাসের আয়োজন করে।

মঙ্গলবার (০৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টার দিকে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত এই অভিযান পরিচালনা করে।অভিযানের নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম।

নগরীর মুসলিম হলে শিক্ষার্থীদের ভর্তি করানোর কৌশল হিসেবে ‘ইশশশ্’ শিরোনামে ইংরেজির ওপর বিনামূল্যের ক্লাস কার্যক্রম চালানোর সময় অভিযান চালিয়ে তাদের হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন-সাইফুর’স কোচিং সেন্টারের চট্টগ্রামের শাখা ব্যবস্থাপক আবু আব্বাস লিটন, একাডেমিক কাউন্সিলর দিদারুল ইসলাম এবং শিক্ষক মোস্তফা ওবাইদুল্লাহ চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘সাইফুর’স কোচিং সেন্টারের কর্মকর্তারা ফ্রি ক্লাসের নামে কৌশলে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম চালাচ্ছিল। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অমান্য করে ভর্তি কার্যক্রম চালানোর অপরাধে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং এক বস্তা লিফলেট জব্দ করা হয়েছে।শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২৭ মার্চ জারি করা নির্দেশনা অনুসারে এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালে কোনো কোচিং সেন্টার কোনো ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে না।তবে এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালে চট্টগ্রামের কোথাও আর কোনো ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে না এই মর্মে মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য করুন

comments