প্রাণে বেঁচে গেলো অসহায় মেয়েটি

35
শেয়ার

আশরাফ আলী পারভেজ,কুতুবদিয়া

প্রেমের ফাঁদে পড়া অসহায় মেয়েটি প্রাণে বেঁচে গেল। প্রেমিকার ছুরির নীচ থেকে মারাত্বক আহত হয়ে এখন কুতুবদিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চকরিয়া উপজেলার হারবাং ষ্টেশন পাড়ার সাধন মল্লিকের মেয়ে প্রিয়া মল্লিক (১৯)। মা মরা মেয়েটি বেঁচে থাকার তাগিদে চট্টগ্রামে কালুর ঘাট এলাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকুরি করত। বাশঁখালি মৌলভীর দোকান এলাকার মেম্বার রশীদ এর নাতী হাসানের সাথে পরিচয় থেকে প্রেম। ফিশিং শ্রমিক হাসান ধর্মান্তরিত করে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে বিভিন্ন সময় তাকে বাশঁখালীর বোটখালি সখিনার কলোনীতে একটি ভাড়া বাসায় রাখতো।গত ১৬ মার্চ ওই বাসায় তাকে নিয়ে আসে। এ খবর পেয়ে হাসানের মা ভাড়া বাসায় গেলে প্রতারণা ধরা পড়ে। হাসানের আগের স্ত্রী,সন্তান আছে – এটি জানতে পারে প্রিয়া। এই নিয়ে দু’জনের মধ্যে এ তর্কও হয়।

গত শনিবার(১৭ মার্চ) প্রিয়াকে হাসান সহ আরো ২ বন্ধু নানার বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে কুতুবদিয়া বায়ু বিদ্যুৎ এলাকায় নিয়ে আসে রাত ৮টার দিকে। ব্লকের পাশে নিয়ে প্রিয়াকে ছুরি দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। পাথরে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে অপর একটি পাথর আনতে গেলে এই ফাঁকে প্রিয়া জীবনপণ ছুটে পালিয়ে তাবালের চর নয়াপাড়ায় রাস্তায় অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকে। এসময় পার্শ্ববর্তী বিধবা নারী মিনুয়ারা প্রিয়ার কান্নার শব্দ পেয়ে তাকে উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালে এনে ভর্তি করান। রবিবার সকালে প্রিয়া কিছুটা সুস্থ হয়ে এমনটা বর্ণনা দিলেন প্রতিবেদককে।

এ ঘটনায় প্রিয়া মল্লিকের পিতা সাধন মল্লিক বাদী হয়ে হাছান ও অজ্ঞাত দুজনসহ ৩ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।প্রিয়া প্রতারক হাসানের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান।

মন্তব্য করুন

comments