X

‘জনসভায় প্রমাণ করতে হবে শেখ হাসিনার পাশে আছি’

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, আগামী একুশে মার্চ পটিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে মহানগর আওয়ামী লীগ প্রতিটি ওয়ার্ড এবং থানা থেকে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীসহ উপস্থিত হব। আরামকে হারাম করে সেদিন প্রমাণ করতে হবে আমরা চট্টগ্রামবাসী জননেত্রী শেখ হাসিনার পাশে আছি এবং আগামী সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে নৌকার প্রার্থীকে বিজয় করার দৃঢ় অঙ্গীকারে তৃণমূল পর্যায়ে সংগঠনকে শক্তিশালী করে তুলব। তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের আহুত জননেত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে সফল করার লক্ষ্যে গতকাল (রবিবার) অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক, যার ফলে বিগত ৯ বছরে তার শাসনামলে চট্টগ্রামসহ সারা বাংলাদেশে যে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে তা ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে। এই উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে আবারো শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে।

তিনি আগামী ২১ শে মার্চের জনসভা সফল করতে আগামী ২০শে মার্চ প্রতিটি ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লায় মিছিল ও সমাবেশ করার কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট হলে আয়োজিত সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, আমরা চট্টগ্রামবাসী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞ। চট্টগ্রামের উন্নয়নগুলো আজ দৃশ্যমান। আমাদের প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিতে হবে।

তিনি বলেন, সামনে জাতীয় নির্বাচন, আমাদের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দলকে গুছিয়ে দলের বিজয় সুনিশ্চিত করতে হবে। কারণ পরাজিত শত্রুরা ওৎপেতে আছে। সেই অশুভ শক্তি যাতে মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে না পারে সেদিকে আমাদের সর্তক থাকতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সংগঠনকে তৃণমূল পর্যায় থেকে গতিশীল করার জন্য এগুলো দলীয় নেতাকর্মীদের অবশ্যই পালনীয় কর্তব্য। এ থেকে বিচ্যুত হওয়ার কোন সুযোগ নেই। এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ পর্যবেক্ষণ টিম এখন থেকে নজরদারি করবে।

তিনি আরো বলেন, ২১ শে মার্চের জনসভাকে ঘিরে সমগ্র চট্টগ্রামের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনগণের মাঝে যে উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে তা ধরে রাখতে এখন থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করা প্রয়োজন।

সভামঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি আলহাজ নঈম উদ্দিন চৌধুরী, এডভোকেট সুনীল কুমার সরকার, এডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, এম জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ বদিউল আলম, এম এ রশিদ, উপদেষ্টা এনামুল হক চৌধুরী, সম্পাদকম-লীর সদস্য নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, আলহাজ শফিকুল ইসলাম ফারুক, এড. ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, হাজী মো. হোসেন, হাজী জহুর আহমদ, আবদুল আহাদ, আবু তাহের, ডা. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার মানস রক্ষিত, শহিদুল আলম, জহরলাল হাজারী, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, ১৫টি থানা আওয়ামী লীগ ও ৪৪টি সাংগঠনিক ওয়ার্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, আহ্বায়ক, যুগ্ম আহ্বায়ক সহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মন্তব্য করুন

comments