X

স্পেশাল ইকনোমিক জোন নির্মাণ করবে চিটাগাং চেম্বার

স্পেশাল ইকনোমিক জোন নির্মাণ করবে দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি। ১৮ মার্চ সকালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয় এক বিশেষ সাধারণ সভা। সেখানে উপস্থিত সাধারণ সদস্যদের অকুন্ঠ সমর্থনে ইকনোমিক জোন নির্মাণের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

চেম্বার প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম’র সভাপতিত্বে সভায় চেম্বারের প্রাক্তন সভাপতি এম. এ. লতিফ এমপি, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ নুরুন নেওয়াজ সেলিম, সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালকবৃন্দ এ. কে. এম. আক্তার হোসেন, কামাল মোস্তফা চৌধুরী, মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), এম. এ. মোতালেব, মঈনুদ্দিন আহমেদ, মোঃ জহুরুল আলম, মাহবুবুল হক চৌধুরী (বাবর), ছৈয়দ ছগীর আহমদ, অঞ্জন শেখর দাশ, মোঃ জাহেদুল হক, এস. এম. শামসুদ্দিন ও মোঃ আবদুল মান্নান সোহেল এবং বিপুল সংখ্যক চেম্বার সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতি কর্তৃক আলোচ্য বিষয় উপস্থাপনের পর চেম্বারের প্রাক্তন সিনিয়র সহ-সভাপতি এম. এ. ছালাম, প্রাক্তন পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, মোহাম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী ও আফসার হাসান চৌধুরী (জসিম), এ.কে. খান এন্ড কোম্পানীর পরিচালক মুর্তজা রাফি খান, জিপিএইচ গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর আবু বকর সিদ্দিকী ও মিডিয়া এডভাইজর ওসমান গণি চৌধুরী সদস্যদের পক্ষ থেকে সমর্থনসূচক বক্তব্য রাখেন।

চেম্বারের প্রাক্তন সভাপতি এম. এ. লতিফ এমপি বলেন-ইকনোমিক জোন নির্মাণ একটি ঐতিহাসিক প্রকল্প যা চেম্বারের সদস্যদের সমর্থনে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। এক্ষেত্রে তিনি শতাব্দী প্রাচীন এই বাণিজ্য সংগঠনের বিভিন্ন অর্জনের উল্লেখপূর্বক পূর্ববর্তী চেম্বার নেতৃবৃন্দের অবদান স্মরণ করেন।

তিনি বলেন-স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ের সেন্ট্রালাইজেশন পলিসির কারণে চট্টগ্রামের অনেক সম্ভাবনা থাকা সত্তেও প্রকৃত প্রদত্ত সুবিধা সদ্ব্যবহার করা সম্ভব হয়নি। তবে বর্তমান সরকার দেশের মোট অবকাঠামো উন্নয়নের প্রায় ৪০% বৃহত্তর চট্টগ্রামে বাস্তবায়ন করছে যা এ অঞ্চলকে আঞ্চলিক হাবে রূপান্তর করবে। মিরসরাইয়ে দেশের বৃহত্তম বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল, কর্ণফুলী টানেল, মহেশখালীতে বিদ্যুৎ প্রকল্প, এলএনজি টার্মিনাল, গভীর সমুদ্র বন্দরসহ এসব প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে সত্যিকার অর্থে উন্নত দেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নের দিকে দেশ এগিয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা করেন এম. এ. লতিফ এমপি।

চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন-বাংলাদেশ এখন স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হচ্ছে। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার নির্মাণ, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা আয়োজন, কাস্টম অটোমেশন প্রজেক্ট ইত্যাদি অর্জনের মধ্য দিয়ে চিটাগাং চেম্বার প্রাইভেট সেক্টরের উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ত্বরান্বিত করার ক্ষেত্রে নিরন্তর কাজ করে চলেছে। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়ে চেম্বার বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে চট্টগ্রাম অর্থনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন। চেম্বার সদস্যদের পক্ষে বক্তারা অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণের লক্ষে সরকারের নিকট রেয়াতি মূল্যে খাস জমি বরাদ্দের আহবান জানান এবং এ প্রকল্পে এসএমই সেক্টরকে প্রাধান্য দেয়ার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

মন্তব্য করুন

comments