পুলিশকে গুলির ঘটনায় ব্যবহৃত পিস্তল উদ্ধার

65
শেয়ার

চট্টগ্রামে তল্লাশি চৌকিতে পুলিশকে গুলি করার ঘটনায় ব্যবহৃত পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার ভোরে ষোলশহর এলাকার কৃষি ভবনের পাশে একটি মাঠে মাটিতে পুঁতে রাখা সেভেন পয়েন্ট ৬৫ বোরের পিস্তলটি উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন পাঁচলাইশ থানার ওসি মহিউদ্দিন মাহমুদ।

তিনি জানান, গ্রেপ্তার খোকনের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ষোলশহর কৃষি ভবনের পাশে এস আলমের খালি মাঠে মাটির নিচ থেকে পেপার ও পলিথিন মোড়ানো পিস্তলটি উদ্ধার করা হয়।

তিনি জানান, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি গ্রেপ্তার খোকনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বৃহস্পতিবার রিমান্ডে আনা হয়েছিল। রিমান্ডে সে পিস্তলের তথ্য দেয়।পরে খোকনের দেখানো স্থান থেকে পিস্তলটি উদ্ধার করা হয়।প্রাথমিকভাবে আমরা নিশ্চিত হয়েছি হামলার ঘটনায় এই পিস্তলটি ব্যবহার করা হয়েছে। তবে সঠিক তথ্য জানার জন্য আমরা পরীক্ষাগারে পাঠানোর জন্য আদালতে আবেদন করব।

হামলার নেতৃত্ব দেয়া আয়মান জিহাদ ও খোকনকে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি ভোরে আনোয়ারা উপজেলার চাতরি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বিকাল সাড়ে চারটায় নগরীর ষোলশহর এলাকায় পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশির সময় একটি মোটরসাকেলকে থামার নির্দেশ দেয়। তখন ওই মোটরসাইকেলে থাকা এক যুবক পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে পাঁচলাইশ থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল মালেক গুলিবিদ্ধ হন। ওই সময় পুলিশ ধাওয়া করে আব্দুল হাকিম অভি নামে এক কিশোরকে গ্রেফতার করে। একই দিন রাতে পাঁচলাইশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রত্যয় ও রাকিব নামে আরও দুই কিশোরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় ওইদিন রাতে উপ-পরিদর্শক নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা দশ জনকে আসামি করা হয়। পুলিশের দেওয়া তথ্য মতে, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় খোকন চৌধুরী, আয়মান জিহাদ, মাহি নামে আরও তিন জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার ব্যক্তিদের মধ্যে খোকন এই ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী। তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা জানায়, নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের হল টুয়েন্টি ফোর এলাকায় প্রতিপক্ষ গ্রুপকে ঘায়েল করতে তারা অস্ত্র নিয়ে সেখানে যাচ্ছিল।

মন্তব্য করুন

comments