X

চন্দনাইশ এবং পেকুয়াতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ জনের মৃত্যু

প্রতিকী ছবি

চট্টগ্রামের চন্দনাইশে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।চট্টগ্রামের চন্দনাইশে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে।নিহতের নাম আনোয়ার হোসেন (১৮)। শনিবার (৩ মার্চ) সকালে উপজেলার সাতবাড়িয়া দেওয়ান হাট চেয়ারম্যান বাড়ির পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে চন্দনাইশ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আতিকুর রহমান জানান, নিহত আনোয়ার হোসেন উত্তর সৈয়দাবাদ হাসিমপুর গ্রামের মৃত মনিরুর রহমানের ছেলে। সে চন্দনাইশ আহমুদুর রহমান চেয়ারম্যানের পোল্ট্রিফার্মে কাজ করত। বিদ্যুতের সুইচে স্পৃষ্ট হয়ে তার মৃত্যু হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি চমেক মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সকাল সাড়ে ১০টায় পোল্ট্রিফার্মের সুইচ বোর্ডের নিচে লাশটি পাওয়া যায়। স্থানীয়রা লাশটি উদ্ধার করে দোহাজারী হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অন্যদিকে কক্সবাজারের পেকুয়ায় কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রশিদা বেগম (৫০) নামের এক রোগী বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের মাতবরপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নারী একই এলাকার নবী হোসেনের স্ত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ওসমান গণি বলেন, সকাল ১১টার দিকে রশিদা বেগম ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে যান। এ সময় বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে তার মৃত্যু হয়। এদিকে নিহতের পরিবারের দাবি, ক্লিনিকের হেলথ সুপারভাইজার মোরশেদ তাকে ক্লিনিকে ঝাড়ু দিতে বাধ্য করে। ঝাড়ু দেয়ার একপর্যায়ে তিনি মাটিতে পড়ে থাকা বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে যান। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। ঘটনার পর হেলথ সুপারভাইজার মোরশেদ পালাতক রয়েছে। মোরশেদ একই ইউনিয়নের বখশিয়া ঘোনা এলাকার আলম মেম্বারের ছেলে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মনজুর কাদের মজুমদার বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্তসাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

comments