X

চট্টগ্রামে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে হাতুড়ে ডাক্তারসহ ৩ জন গ্রেফতার

চট্টগ্রামে এক নারীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এক হাতুড়ে চিকিৎসকসহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২ মার্চ) বিকালে নগরীর ডবলমুরিং থানার ঝর্ণা পাড়া থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ডবলমুরিং থানার ওসি একে এম মহিউদ্দিন সেলিম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন– হাতুড়ে চিকিৎসক মিজানুর রহমান (৫৩) ও তার ছেলের বন্ধু মোহাম্মদ হোসেন (২৫) ও আব্দুল কাদের রবিন (২৪)।

পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার মিজানুর রহমান আইএফআইসি ব্যাংকের লালদীঘি শাখায় চাকরি করেন। ঝর্ণা পাড়ায় তার একটি ফার্মেসি আছে, যেখানে তিনি স্থানীয় লোকজনের ‘ডাক্তারিও’ করেন।

ডবলমুরিং থানার ওসি একে এম মহিউদ্দিন সেলিম বলেন, ‘চেতনানাশক ইনজেকশন দিয়ে ধর্ষণচেষ্টা এবং ঘটনা ধামাচাপা দিতে হামলার অভিযোগ এনে গ্রেফতার তিন জনের বিরুদ্ধে এক নারী দুইটি মামলা দায়ের করেছেন।’

এজাহার সূত্রে জানা গেছে ,“ঝর্ণা পাড়া এলাকার এক অটোরিকশা চালকের স্ত্রী ২৭ বছর বয়সী ওই নারী ‘মেয়েলি সমস্যা’ নিয়ে বুধবার রাতে মিজানুরের ফার্মেসিতে যান। মিজানুর ওষুধের জন্য চারশ টাকা নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তাকে আবার ফার্মেসিতে যেতে বলেন।ওই নারী রাত ৯টার দিকে ফার্মেসিতে গেলে রোগী বেশি- এই অজুহাতে তাকে পরে আসতে বলেন ওই হাতুড়ে ডাক্তার। এরপর ওই নারী রাত ১১টার দিকে ফার্মেসিতে গেলে মিজানুর তখন তাকে রোগীর বেডে শুইয়ে একটি ইনজেকশান দিলে ওই নারীর চেতনা লোপ পেতে থাকে। মিজানুর তখন শরীরের স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয় বলে ওই নারীর অভিযোগ।
মিনিট দশেক পর তার চেতনা কিছুটা ফেরে এবং তিনি শরীরে অস্বস্তি অনুভব করেন। এরপর তিনি জোর করে উঠে পড়েন এবং বাসায় গিয়ে স্বামীকে নিয়ে আসেন। স্বামী চেম্বারের ময়লা ফেলার ঝুড়ি থেকে ইনজেকশনের অ্যাম্পুলটি সংগ্রহ করে পাশের আরেকটি ফার্মেসিতে নিয়ে দেখলে তাদের জানানো হয়, সেটি চেতনানাশক ইনজেকশন।মিজানুর পরে ওই মহিলার বাসায় গিয়ে শাসিয়ে আসে, যাতে তারা কাউকে কিছু না বলে। এরপর শুক্রবার দুপুরে মিজানুরের ছেলে আনিসুর রহমান দলবল নিয়ে ঝর্ণা পাড়ায় ওই নারীর বাসায় হামলা চালায়।”

তাদের মারধরে ওই নারীর দুই ভাই আহত হন। ঝামেলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মিজানুরসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।

মন্তব্য করুন

comments