চট্টগ্রামের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানালো সর্বস্তরের মানুষ

16
শেয়ার

সারাদেশের মতো বন্দরনগরী চট্টগ্রামেও যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ভাষা শহীদদের স্মরণ করতে আজ বুধবার মহান ভাষা দিবসে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ শহীদ বেদিগুলোতে মানুষের ঢল নেমেছে। ফুলে ফুলে ভরে উঠেছে শহীদ মিনারগুলো। ঘড়ির কাঁটা রাত ১২টার ঘর স্পর্শ করার পর থেকেই শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানোর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।কারো হাতে লাল সবুজের জাতীয় পতাকা, কারো মাথায় মোড়ানো সেই পতাকা। সকলেই পুষ্পস্তবক অর্পণ ও নীরবে দাঁড়িয়ে থেকে শ্রদ্ধা জানান।

শুরুতেই নগর পুলিশের একটি চৌকস দল সশস্ত্র অভিবাদনের মধ্যদিয়ে শ্রদ্ধা জানায় ভাষা শহীদদের। এরপর একে একে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম নির্বাচিত সদস্য ও কর্মকর্তা-কর্মচারিদের নিয়ে শহীদ মিনারে ফুল দেন।

চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো.আব্দুল মান্নান, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান, সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার, চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নূর ই আলম মিনা, চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক জিল্লুর রহমান চৌধুরীও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের নেতারা সাংবাদিকদের নিয়ে যৌথভাবে ফুল দেন। চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনও আলাদাভাবে ফুল দেয়। পাশাপাশি জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন এবং মহানগর ইউনিটের কমান্ডার মোজাফফর আহমেদের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সদস্যরা, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি রতন রায় ও সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফের নেতৃত্বে আইনজীবী নেতারা শহীদ মিনারে ফুল দেন।

আজ ভোর থেকে শুরু হয় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের উদ্দেশ্যে প্রভাত ফেরি। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে মানুষের স্রোত। এক পর্যায়ে শহীদ মিনারের আশপাশের এলাকা সিনেমা প্যালেস, রাইফেল ক্লাব, নন্দনকানন, ডিসি হিল, রেয়াজউদ্দিন বাজার, নিউমার্কেট চত্বরসহ পুরো এলাকা লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন বিভিন্ন সংগঠনের কর্মী ও সাধারণ মানুষ। পরে একে একে ফুল দিয়ে জাতির মহান সন্তানদের স্মরণ করেন। পুষ্পস্তবক অর্পণের সময় শহীদ মিনারে আসা মানুষের শ্লোগানে পুরো এলাকা মুখরিত হয়ে ওঠে। অনেকেই একুশের গান গেয়ে শহীদদের স্মরণ করেন।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে নগরীর বিভিন্ন স্থানে আলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, কবিতা পাঠের আসর, গানসহ নানা অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

comments